ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

জিয়ার গণতন্ত্র ছিল যুদ্ধাপরাধীদের পুনর্বাসন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৪৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭
জিয়ার গণতন্ত্র ছিল যুদ্ধাপরাধীদের পুনর্বাসন

যশোর থেকে: বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত জিয়াউর রহমানের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জিয়ার গণতন্ত্র ছিল যুদ্ধাপরাধীদের নিয়ে। যারা এদেশের স্বাধীনতা চায়নি, হানাদারদের সঙ্গে এদেশের মানুষের ওপর নৃশংসতা চালিয়েছে, তাদের পুরস্কৃত ও পুনর্বাসন করাটা ছিল তার বহুদলীয় গণতন্ত্র।

রোববার (৩১ ডিসেম্বর) বিকেলে যশোরের কেন্দ্রীয় ইদগাহ ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এ কথা বলেন। সভায় সভাপতিত্ব করছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম মিলন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির জনককে হত্যার পর এ দেশ পরিণত হয়েছিল হত্যা, ক্যু, কারফিউর দেশ। লুটপাটের রাজত্বে কায়েম করা হয়েছিলো এ দেশে। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরা কারফিউ জারি করে দেশ চালাতো। জিয়া কারফিউ দিয়ে ভীতিকর পরিবেশে দেশ চালাতেন। ’

‘জিয়ার গণতন্ত্র ছিলো যুদ্ধাপরাধীদের নিয়ে। যে যুদ্ধাপরাধীরা এ দেশের স্বাধীনতা চায়নি, এ দেশের মা-বোনদের সম্ভ্রমহানি করেছে, পাকিস্তানি হানাদারদের হাতে তুলে দিয়েছে, নৃশংসভাবে গণহত্যা চালিয়েছে, সেই যুদ্ধাপরাধীদের বাংলাদেশের রাজনীতিতে পুনর্বাসিত করে পুরস্কৃত করাটা ছিল জিয়ার বহুদলীয় গণতন্ত্র। ’

এর আগে জনসভা মঞ্চে পৌঁছেই যশোরের উন্নয়নে ২৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। বক্তৃতায় এ প্রকল্পগুলোর কথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭
এমএ/এইচএ/

আরও পড়ুন
** যশোরে ২৮ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রীর
** যশোরে জনসভাস্থলে প্রধানমন্ত্রী
** যশোরে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা শুরু
** মিছিলে মিছিলে জনস্রোত প্রধানমন্ত্রীর জনসভায়
** মাতৃভূমি রক্ষায় নিষ্ঠা নিয়ে কাজ করতে হবে বিমানবাহিনীকে
** যশোরে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

** যশোরবাসীর জন্য উন্নয়নযজ্ঞ নিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
** প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে যশোরে উৎসবের আমেজ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa