ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

১৬৫ দেশে কর্মী পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১১-১৯ ৮:১৮:৩৯ এএম
জাতীয় সংসদের অধিবেশন কক্ষ/ফাইল ফটো

জাতীয় সংসদের অধিবেশন কক্ষ/ফাইল ফটো

ঢাকা: বর্তমান সরকারের আমলে প্রতিবছরই জনশক্তি রপ্তানি বাড়ছে। এই মুহূর্তে বিশ্বের ১৬৫টি দেশে কর্মী পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি। 

রোববার (১৯ নভেম্বর) সংসদ অধিবেশনের প্রশ্নোত্তর পর্বে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমরের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। মন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে তার পক্ষে প্রশ্নের উত্তর দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। 

মন্ত্রী বলেন, ২০১৫ সালে বিদেশগামী কর্মীর সংখ্যা ছিল সাড়ে ৫ লাখ ৫৫ হজার। ২০১৬ সালে তা বেড়ে ৭ লাখ ৫৭ হাজার হয়েছে। ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত মাত্র ১০ মাসেই ৮ লাখ ৩৪ হাজার ৭৭৩ জন কর্মী বিদেশে গেছেন। 

তিনি জানান, প্রধান প্রধান শ্রম বাজার সৌদিআরব, ওমান, কাতার, বাহরাইন, লেবানন, মালয়েশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, জর্ডান প্রভৃতি দেশের সঙ্গে কর্মী পাঠানোর বিষয়ে বাংলাদেশ চুক্তি/সমঝোতা স্মারক সই করেছে। সরকারের গৃহীত নানামুখী কূটনৈতিক তৎপরতার ফলে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিদেশগামী কর্মীর সংখ্যা উত্তরোত্তর বাড়ছে।

এরপর নুরুল ইসলাম ওমরের এক সম্পূরক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, শ্রমিক নির্যাতনের ঘটনা শুধু সৌদি আরব নয়, কুয়েত, মালেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে হয়। তবে এমন ঘটনার খবর পেলে দূতাবাসগুলো তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়। বিদেশে শ্রমিকদের নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করতে সরকার সচেষ্ট। 

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আলী আজমের অপর এক সম্পূরক প্রশ্নে মন্ত্রী জানান, বিদেশে নারী শ্রমিকরা নির্যাতনের শিকার হন, এমন ঢালাও অভিযোগ সঠিক নয়। ঢালাওভাবে এমনটি হলে মা-বোনেরা সেখানে যেতো না। কোথাও কোথাও এমনটি হয়। তবে এমন ঘটনার খবর পেলে দূতাবাসগুলো ব্যবস্থা নেয়। অনেক স্থানেই অনেক কারণে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। তবে বিদেশে গিয়ে কেউ নির্যাতনের শিকার হলে আমরা সবাই কষ্ট পাই। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় ও দূতাবাসগুলো সতর্ক রয়েছে।

***ভারতের সঙ্গে সমান বাণিজ্যের জন্য অপেক্ষা করতে হবে 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫০ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০১৭ 
এসকে/এএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2017-11-19 08:18:39