ঢাকা, শনিবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১

শিক্ষা

‘মাই ই-কিডস্ ২০১২’ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

সিজারাজ জাহান মিমি | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৪০৬ ঘণ্টা, মার্চ ১৮, ২০১২
‘মাই ই-কিডস্ ২০১২’ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

শিশুদের পরিপূর্ণ মানসিক বিকাশে বর্তমানে বাংলাদেশে হাজারো সমস্যা ও সীমাবদ্ধতা বিদ্যমান। আগের দিনে শিশুদের মানসিক বিকাশে পর্যাপ্ত খেলাধুলার সুযোগ ছিল,  সহায়ক অনুকূল পরিবেশ ছিল।

কিন্তু আজকের শিশুরা চার দেয়ালের মাঝে বন্দি। তাদের একমাত্র অবলম্বন বা বন্ধু টেলিভিশন, কম্পিউটারের মত যন্ত্র। যা শিশুদের পরিপূর্ণরূপে গড়তে সহায়ক নয়। শুধু সার্টিফিকেট দিয়ে প্রতিযোগিতার এই সময়টায় টিকে থাকা সম্ভব নয়, এর জন্য দরকার মানসিক বিকাশ ও শারীরিক উপযুক্ততা। বঞ্চিত আজকের শিশুদের এসব প্রয়োজনের দিকগুলোকে লক্ষ্যে রেখে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল প্রতি বছর বিনোদনে শিক্ষা সম্প্রসারণ প্রতিযোগিতার উদ্যোগ নিয়েছে।

যার ধারাবাহিকতায় গত ১৬ মার্চ ধানমন্ডির কলাবাগান মাঠে বণার্ঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে দ্বিতীয় বার ‘মাই ই-কিডস্ ক্যাম্প ২০১২’ সম্পন্ন হয়। ঢাকাসহ আশপাশের এলাকা থেকে দেড় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কয়েক হাজার শিশু-কিশোর এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। ৮টি ইভেন্টে ৪টি ক্যাটাগড়িতে মোট ৩২টি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

তিনটি ইভেন্টে সেরা নৈপুণ্যর জন্য জুরি বোর্ডের বিচারে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের উত্তরা শাখার নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী সাজ্জাদ হোসেন ‌‌`সুপার কিডস্ ‘২০১২‌’ নির্বাচিত হয়ে ল্যাপটপ জিতেন। অন্যান্য বিজয়ীদের ক্রেস্টসহ আকর্ষনীয় পুরস্কার দেওয়া হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও বিখ্যাত পানি বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত, ডেইলী সান পত্রিকার সম্পাদক প্রফেসর ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ, ড্যাফোডিল গ্রুপের চেয়ারম্যান সবুর খান, এ টি এন বাংলার বার্তা প্রধান জ.ই মামুন, বৈশাখী টেলিভিশনের বার্তা প্রধান রাহুল রাহা, এডেক্সেল এর কান্ট্রি ম্যানেজার সাইদুর রহমান, জেসি আই এর প্রধান  জামিল আহমেদ প্রমুখ।  

এর আগে দিনের প্রথম প্রহরে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়। উদ্বাধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বর্তমান প্রেক্ষাপটের উপযোগী শিক্ষাব্যবস্থাসহ নানা বিষয় তুলে ধরেন। ড্যাফোডিল গ্রুপের চেয়ারম্যান বলেন, শিশুদের জন্য বছরে অন্ততপক্ষে একটা দিন খেলাধুলা ও বিনোদনের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।     

এবারের আয়োজনে ছিল-আইটি মেলা, ইন্টারনেট জোন, গেমস্ কর্ণার, ডিজিটাল আর্ট, রচনা, কম্পিউটার গেমস, সঙ্গীত, আবৃত্তি ও যেমনখুশি তেমনসাজ। এছাড়া বিনোদনের জন্য বর্ণাঢ্য র‌্যালি, পাপেট শো, টয় ট্রেইন, বাউন্সি বল, স্ট্রিট ম্যাজিকসহ মজার সব আয়োজন। ক্লোজ আপ তারাকা, চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa