bangla news

মণিরামপুরের অদম্য লিতুনজিরার পাশে বসুন্ধরা গ্রুপ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-১৮ ৬:২৯:০৩ পিএম
মণিরামপুরের অদম্য লিতুনজিরার পাশে বসুন্ধরা গ্রুপ। ছবি: বাংলানিউজ

মণিরামপুরের অদম্য লিতুনজিরার পাশে বসুন্ধরা গ্রুপ। ছবি: বাংলানিউজ

যশোর: যশোরের মণিরামপুরে মুখ দিয়ে লিখে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া লিতুনজিরার স্বপ্ন পূরণে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। 

দেশের সংবাদ মাধ্যমে লিতুনজিরার বিষয়টি জেনে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান তাকে সহযোগিতা করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার (১৮ জানুয়ারি) দুপুরে তার পক্ষে বসুন্ধরা গ্রুপের ডিজিএম (হেড অব বাল্ক সেলস) মো. রেদোয়ানুর রহমান লিতুনজিরার বাবার হাতে পাঁচ লাখ টাকার চেক তুলে দেন। এছাড়া লিতুনজিরার পরিবারের সদস্যদের জন্য বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে বিভিন্ন উপহার সামগ্রী দেওয়া হয়।
 
চেক দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা ফুড অ্যান্ড বেভারেজ এবং বসুন্ধরা মাল্টি ফুড প্রোডাক্টসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

.অদম্য মেধা আর আত্মবিশ্বাসের জোরে মুখ দিয়ে লিখেই সাফল্যকে নিজের করে নিয়েছে লিতুনজিরা। ভবিষ্যতে ডাক্তার হওয়ার ইচ্ছা আছে তার। কিন্তু চার হাত-পা বিহীন লিতুনজিরাকে লম্বা সেই পথ যেতে বাস্তবিকভাবেই কিছু বাধা পেরোতে হবে। সেইসব বাধার কথা চিন্তা করে লিতুনজিরা ও তার পরিবারের সদস্যরা প্রায়ই উদ্যোম হারিয়ে ফেলেন। কিন্তু বরাবরের মতো লিতুনজিরার স্বপ্ন পূরণে পাশে দাঁড়ালো বসুন্ধরা গ্রুপ।

পাঁচ লাখ টাকার চেক পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে প্রতিক্রিয়ায় লিতুনজিরা বলে, ছোট বেলা থেকে বসুন্ধরার খাতাতেই আমি লিখি। সেখান থেকেই বসুন্ধরার গ্রুপের নাম জেনেছি। সেই বসুন্ধরা গ্রুপের স্যারেরা ঢাকা থেকে আমার বাড়িতে এসে আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন। আমাকে পাঁচ লাখ টাকার চেক, স্কুল ব্যাগ, আমার পরিবারের সবার জন্য অনেক উপহার সামগ্রী দিয়েছেন। এর জন্য বসুন্ধরা গ্রুপের স্যারদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমি খুবই খুশি, আমি আনন্দিত। এদিনটি আমার জীবনে একটি স্মরণীয় দিন হয়ে থাকবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৮, ২০২০
ইউজি/আরআইএস/এজে

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-01-18 18:29:03