ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

ক্রিকেট

শান্তর আউট দেখে ‘অবাক’ হয়েছিলেন মাহমুদুলও

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২৩
শান্তর আউট দেখে ‘অবাক’ হয়েছিলেন মাহমুদুলও

সিলেট থেকে: তখন একটা উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ। তবুও নাজমুল হোসেন শান্ত ও মাহমুদুল হাসান জয়ের ব্যাটে আশা দেখছিল দল।

এর মধ্যে শান্ত একটু আগ্রাসী ক্রিকেটও খেলছিলেন, ৩৫ বলের ইনিংসে তিনি ছক্কা হাঁকান তিনটি। গ্লেন ফিলিপস এমনিতে ‘অকশেনাল বোলার’, তার ওপর কেবল এক টেস্ট খেলারই অভিজ্ঞতা তার।  

তার ফুলটস কি না এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে ক্যাচ দেন কেইন উইলিয়ামসনের হাতে। সেই আউটের পর বোলার, ফিল্ডাররাও বিস্মিত হয়েছিলেন; শান্তর ছিল হতাশা। তখন নন স্ট্রাইক প্রান্তে ছিলেন মাহমুদুল। দিনশেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে শান্তর আউট দেখে নিজের অনুভূতি জানান তিনি।  

মাহমুদুল বলেন, ‘একটু তো হতাশাজনক। আউট তো হয়ই, কিন্তু ফুলটস বলে হয়ে গেছে, এটা তো আর সবদিন হবে না। আমি একটু অবাক হইছি যে ফুলটস বলে। এর আগে অনেকগুলো ভালো শট খেলেছিল, তো...। ’

‘শান্ত ভাই তো নরমালি এমনই ব্যাটিং করে। উনি উনার পরিকল্পনায় ছিল উনি যেমন ন্যাচারাল ব্যাটিং করে, সেটাই করেছে। একটু তো হতাশা থাকবেই। একটা ব্যাটার কিন্তু সবসময় সেট হওয়ার সুযোগ পায় না। যখন পায়, তখন ৩০-৪০ রান করে আউট হলে হতাশারই। ’

এ ম্যাচে ফিলিপস নিয়েছেন চার উইকেট। যেটি প্রত্যাশিত ছিল না অনেকের কাছেই। এর মধ্যে নুরুল হাসান সোহান ও শাহাদাৎ হোসেন দীপুর আউটও ছিল অপ্রত্যাশিত বোলার। ফিলিপসকে নিয়ে কী পরিকল্পনা ছিল বাংলাদেশের?

মাহমুদুল বলেন, ‘না, দেখেন ও অকশেনাল বোলার ছিল। আমরা যদি ওকে চার্জ না করি, তাহলে হয়তো দেখা গেল ও যদি ভালো বল করে, মেইন বোলাররা আমাদের আরও চেপে বসবে। আমাদের পরিকল্পনা ছিল অকশেনাল আসলে ওকে টেক অফ করা। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত আমরা বাজে শট খেলে আউট হয়ে গেছি। ’

বাংলাদেশ সময় : ১৭৩৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২৩
এমএইচবি/এএইচএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।