ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

ভারত

পশ্চিমবঙ্গে একদিকে দেব-হিরণ, অন্যদিকে পবন-শত্রুঘ্নর লড়াই

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০১৭ ঘণ্টা, মার্চ ৩, ২০২৪
পশ্চিমবঙ্গে একদিকে দেব-হিরণ, অন্যদিকে পবন-শত্রুঘ্নর লড়াই

কলকাতা: তফসিল ঘোষণার আগেই ভারতের সংসদ নির্বাচনের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে দেশটির ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।  

শনিবার (২ মার্চ) প্রথম ধাপে ৫৪৩ আসনের মধ্যে ১৯৫ প্রার্থীর নাম প্রকাশ করেছে দলটি।

এর মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের ৪২ আসনের মধ্যে ২০ আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে দলটি।

সেখানে সম্ভাব্য দুটি আসনে বিনোদন জগতের তারকার প্রার্থীর লড়াই হতে চলেছে। আসানসোল আসনে বিজেপির তরফে প্রার্থী করা হয়েছে জনপ্রিয় ভোজপুরি নায়ক ও গায়ক পবন সিংকে। বর্তমানে এই আসনে তৃণমূলের সংসদ সদস্য, বলিউড অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহা। পবন এবং শত্রুঘ্ন দুজনেই বিহারি। বিহার তাদের আদি নিবাস।

মূলত: আসানসোল ইন্ড্রাস্ট্রি এলাকা। পশ্চিমবঙ্গে সবচেয়ে বেশি বিহারি থাকে ওই অঞ্চলে। সেই অঙ্ক কষে শত্রুঘ্নকে বেছে নিয়েছিল তৃণমূল। একই চাল চালল বিজেপিও। তবে শত্রুঘ্নের সিনেমার বাজার নেই। পবনের আছে। ফলে এই আসনে দুই বিহারীর ভোটের লড়াই দেখবে বঙ্গবাসী।

এই আসনের একসময় বিজেপির এমপি ছিলেন সঙ্গীত শিল্পী বাবুল সুপ্রিয়া।  কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও সামলেচ্ছেন তিনি।  

পরবর্তীতে, দলের সাথে দূরত্ব তৈরি হতেই তৃণমূলে যোগ দেয় বাবুল। উপনির্বাচনে কলকাতার একটি আসন থেকে বিধায়ক হন বাবুল। রাজ্যের মন্ত্রী তিনি। আসন ফাঁকা হতেই উপনির্বাচনে শত্রুঘ্নকে আনে তৃণমূল।    

তবে জানা যাচ্ছে, এবারের সংসদ নির্বাচনে শত্রুঘ্ন সিনহা প্রার্থী না হওয়ার অনিচ্ছা প্রকাশ করেছে। শত্রুঘ্ন চাইছেন, আসানসোলে তার পরিবর্তে প্রার্থী করা হোক মেয়ে সোনাক্ষী সিনহাকে। মূলত, বলিউডে সোনাক্ষীর হাতে এখন আর তেমন সিনেমা নেই। তাছাড়া তার সিনেমা যে খুব চলে যে তাও না। ফলে শত্রুঘ্ন একটা মাস্টারস্ট্রোক দিতে চাইছেন। তবে সবটাই নির্ভর করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর। ফলে পশ্চিমবঙ্গের এই আসনে ভোটের মাঠে পরতে পরতে চমক আসতে চলেছে।

অপরদিকে, পূর্ব মেদিনিপুর জেলাতেও চমক দিয়েছে বিজেপি। প্রার্থী করা হয়েছে অভিনেতা হিরণ চট্টোপাধ্যায়কে। বর্তমানে খড়গপুরের বিজেপি বিধায়ক হিরণ।  

তৃণমূল সূত্রের খবর, এই আসনে ফের প্রার্থী করা হবে অভিনেতা দেবকে। তিনি বর্তমানে ঘাটাল আসনে জয়ী সংসদ সদস্য। যদিও মাঝে দেব বলে দিয়েছিলেন, তিনি আর নির্বাচনে প্রার্থী হবে না। তবে মমতা এবং অভিষেকের মধ্যস্থতায় মান ভেঙেছে দেবের।

দেব এখনও টলিউড বক্স অফিসে সুপারহিট। প্রসেনজিতের পর এক নম্বর নায়ক। বিপরীতে, টলিউডে এখন আর বাজার নেই হিরণের। তিনি আর সিনেমাও করেন না।  

অনেকে মনে করছেন, দেবের বিরুদ্ধে টলিপাড়ার কোনো যুৎসই মুখ না পেয়ে হিরণকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। যদিও রাজ্যের বিরোধী নেতা শুভেন্দু অধিকারী সম্প্রতি দিল্লিতে গিয়ে অমিত শাহর সঙ্গে দেখা করেন।

সেখানে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, চারটি আসনে বিজেপিকে জেতানোর দায়িত্ব নিচ্ছি আমি। কাঁথি, তমলুক, ঘাটাল ও  আরামবাগ। ফলে পর্যবেক্ষকদের মতে, ঘাটালের লড়াই আপাতভাবে অসম এবং তৃণমূলের জন্য সহজ মনে হলেও আসলে ততটা সহজ নয়। লড়াই হবে জমজমাট।

বাংলাদেশ সময়: ০০১১ ঘণ্টা, মার্চ ৩, ২০২৪
ভিএস/এসএএইচ


 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।