ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্বাস্থ্য

‘লজ্জা পেয়ে কেক কাটা থেকে বিরত থেকেছেন তারা’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪৯ ঘণ্টা, আগস্ট ২২, ২০১৬
‘লজ্জা পেয়ে কেক কাটা থেকে বিরত থেকেছেন তারা’

ঢাকা: বিএনপি ও দলটির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ‘তারা কেক কাটেন শোক দিবসের দিনে, কতোটা হীনমন্যতায় ভোগেন তারা! আজ তারা লজ্জা পেয়েছেন বলেই কেক কাটা থেকে বিরত থেকেছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ তার জাতির জনককে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে।

তবে বাংলাদেশের কিছু ছোট ছোট রাজনৈতিক দল হীনমন্যতায় ভোগে’।

সোমবার (২২ আগস্ট) বিকালে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায়য় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচারের পর একটি দল ও কিছু মানুষ সন্তোষ প্রকাশ করেননি, একটি বিবৃতি পর্যন্ত দেননি। এতে কী বোঝা যায়! তারা এ ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। এখন পর্যন্ত তারা এ নিয়ে কোনো সন্তোষ প্রকাশ করে না। যেখানে এই হত্যার রায় হওয়ার পর, খুনিদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর সাধারণ মানুষ স্বস্তি প্রকাশ করেছেন’।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, জাতীয় চার নেতা হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এখনও জাতিকে কলঙ্কিত করার চেষ্টা হচ্ছে।   গুলশানে, কিশোরগঞ্জে শোলাকিয়ায় সন্ত্রাসী হামলা হলো, এসব কারা করেছে, আমরা জানি। সেদিন প্রধানমন্ত্রীর ডাকে দেশবাসী সাড়া দিয়েছেন, জঙ্গিদের বিরুদ্ধে একাত্ম হয়েছেন। কিন্তু খালেদা জিয়া বললেন, এটা নাকি রক্তাক্ত গণঅভ্যুত্থান! চিন্তা করেন, সন্ত্রাসী হামলা, জঙ্গি হামলাকে বলেন রক্তাক্ত গণঅভ্যুত্থান’।

‘এটা তিনি কী বোঝাতে চান যে, তিনি এ ঘটনা ঘটিয়েছেন?’- ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন নাসিম।

স্বাস্থ্যখাতের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে নাসিম বলেন, ‘কিছুদিনের মধ্যেই ১০ হাজার নার্স নিয়োগ হচ্ছে। এর আগে ছয় হাজার ডাক্তার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আপনারা কাজ করুন। নিজের দায়িত্ব পালন করুন মন দিয়ে। তবেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা তৈরি করা যাবে। বক্তব্য-বিবৃতি দিয়ে লাভ নেই, কাজ করতে হবে’।

কলেজের অধ্যক্ষ এবিএম মাকসুদুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মাহমুদ হাসান, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এমএ আজিজ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক ডা. জুলফিকার লেনিন, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৫ ঘণ্টা, অাগস্ট ২২, ২০১৬
এমএন/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa