ঢাকা, সোমবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়লো

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়লো

ঢাকা: শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড-২০২০ পেতে আগ্রহীদের রেজিস্ট্রেশনের সময় বাড়লো আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

প্রাথমিকভাবে রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম ১ নভেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত হওয়ার কথা থাকলেও তরুণ স্বেচ্ছাসেবীদের সর্বোচ্চ অংশগ্রহণ নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে প্রতিযোগিতার আয়োজক কমিটি এ রেজিস্ট্রেশনের শেষ সময় আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে যুব ও ক্রীড়া সচিব মো. আখতার হোসেন এ তথ্য জানান। এসময় অনলাইনে জুমের মাধ্যমে সংযুক্ত হন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল।

করোনাকালীন সঙ্কটময় মুহূর্তে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশ এবং বৈশ্বিক যুবাদের অনন্য মানবিক অবদানের স্বীকৃতি দিতে ‘ঢাকা ওআইসি ইয়্যুথ ক্যাপিটাল ২০২০’-এর অধীনে প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর নামে ‘শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ চালু হচ্ছে। যার মাধ্যমে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় যুবকদের একক ও দলীয়ভাবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার, সার্টিফিকেট ও সম্মাননা দেবে।

যুব ও ক্রীড়া সচিব বলেন, চলমান করোনা সঙ্কট মোকাবিলায় সরকারের পাশাপাশি আমাদের বাংলাদেশ ও বিশ্বের যুবারা আর্তমানবতার সেবায় যে অবদান রেখেছেন তার স্বীকৃতি দিতে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় ‘ঢাকা ওআইসি ইয়্যুথ ক্যাপিটাল ২০২০’-এর অধীনে প্রথমবারের মতো ‘শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলান্টিয়ার অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ শীর্ষক প্রতিযোগিতা আয়োজনের পরিকল্পনা করা হয়েছে। যার মাধ্যমে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় তরুণদের ১০টি ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে একক ও দলীয়ভাবে মোট ১০০ জনকে পুরস্কার ও সম্মাননা দেবে।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী রাসেল বলেন, আমরা সবাই দেখেছি এ করোনা মহামারির সময়ে তরুণরা কীভাবে স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমে সম্পৃক্ত ছিলো। তারা আর্থিক সহযোগিতা দিয়েছে, চিকিৎসা সহায়তা দিয়েছে, মরদেহ দাফন করেছে, এরকম নানাবিধ স্বেচ্ছাসেবী সহায়তা দিয়েছে। তরুণরা প্রায়ই বলে থাকে যে তারা তাদের কাজের স্বীকৃতি পায় না। তাই সরকারের পক্ষ থেকে সরাসরি আমরা এ উদ্যোগটি নিয়েছি এবং এটি শুধু আমরা দেশেই সীমাবদ্ধ রাখছি না, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে এ স্বীকৃতিটি তরুণদের দিতে চাই।

সাংবাদিক এবং মিডিয়াকর্মীদেরও এ অ্যাওয়ার্ডটি দেওয়া হবে জানিয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের প্রতিযোগিতায় রেজিস্ট্রেশনের জন্য আহ্বান জানান।

যে ১০টি ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড-
মোস্ট ইন্সপায়ারিং ভলান্টিয়ার স্টোরি, মোস্ট ইমপ্যাক্টফুল ইনিশিয়েটিভ, বেস্ট ইনোভেটিভ আইডিয়া, করপোরেট সাপোর্ট ইন ভলান্টারি ইয়্যুথ অ্যাক্টিভিটিস, মোস্ট ইমপ্যাক্টফুল মিডিয়া পার্সোনেল, কমিউনিটি লিডারশিপ অ্যান্ড সার্ভিস, ইনভায়রনমেন্টাল রেসপন্স, অ্যাক্ট অব ব্রেভারি, সার্ভিস অ্যাক্সেলেন্স, আউটস্ট্যান্ডিং ভলান্টিয়ার অর্গানাইজেশন।

রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া এবং যাবতীয় তথ্য পাওয়া যাবে: http://youthpowerhouse.org/shyva. এসময় প্রতিযোগিতার লোগো উন্মোচন করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
এমআইএইচ/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।