ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

কীর্তনখোলার নৌ-দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০২ ঘণ্টা, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯
কীর্তনখোলার নৌ-দুর্ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন

বরিশাল: বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চ ও মালবাহী কার্গোর মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রোববার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমডোর মোহাম্মদ মাহাবুব-উল ইসলাম।

তিনি জানান, বিআইডব্লিউটিএ’র নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থা বিভাগের যুগ্ম পরিচালক মো. সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে এরইমধ্যে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। কমিটি তদন্তের মাধ্যমে দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখবে। এতে কারও যদি গাফিলতি থাকে তা যেমন কমিটি দেখবে এবং ভবিষ্যতে এ থেকে কীভাবে পরিত্রাণ পাওয়া যায় সে বিষয়ে সুপারিশ রাখবে।

মাহাবুব-উল ইসলাম বলেন, আমরা চাই না কোনো দুর্ঘটনা ঘটুক। আবার আমরা সবাই চাচ্ছি যাতে কোনো দুর্ঘটনাতেই হতাহতের ঘটনা না ঘটে। বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে ঘটা দুর্ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। বিআইডব্লিউটিএসহ স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় তাৎক্ষণিক উদ্ধার কাজ শুরু করা হয়। এগুলো খুবই ভালো দিক।

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে এমভি শাহরুখ-২ লঞ্চটি প্রায় ৩৫০ জন যাত্রী নিয়ে বরগুনা থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। বরিশাল নদীবন্দর সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদী দিয়ে যাওয়ার সময় চট্টগ্রাম থেকে আসা অ্যাংকর সিমেন্টের ১২০০ মেট্রিক টন ক্লিংকারবাহী এমভি মো. দুদু মিয়া (রা.)-১ নামের একটি কার্গোর সঙ্গে লঞ্চটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে লঞ্চের সামনের অংশের তলা ফেটে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং সিমেন্ট তৈরির ১২০০ মেট্রিক টন উপাদান (ক্লিংকার)বাহী কার্গোটি নদীতে ডুবে যায়।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯
এমএস/আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa