bangla news

শিশু তুহিন হত্যা: বাবা-চাচাসহ তিন জন রিমান্ডে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৫ ৪:৪৪:৪৭ পিএম
নৃশংস অত্যাচার করে হত্যা করা শিশু তুহিনকে

নৃশংস অত্যাচার করে হত্যা করা শিশু তুহিনকে

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউড়া গ্রামে শিশু তুহিন মিয়া (৫) হত্যার ঘটনায় তার বাবাসহ তিন জনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শ্যাম কান্ত সিনহার আদালতে তিন জনকে হাজির করে পুলিশ পাঁচ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত প্রত্যেককে তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে তুহিনের বাবা আব্দুল বাছির, চাচা জামশেদ আলী, আব্দুল মোশাব্বির।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দিরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু তাহের মোল্লা ৫ দিনের রিমান্ড চাইলে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

অন্য দু’জন আসামি তুহিনের চাচা নাসির ও চাচাতো ভাই শাহরিয়ার ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছেন বলে জানা যায় আদালত সূত্রে।

এর আগে আটক ৫ জনকে দিরাই থানা থেকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে দুপুরের দিকে সুনামগঞ্জ আদালতে নিয়ে আসা হয়। নাসির ও শাহরিয়ারকে জেলহাজতে ও আটক ৭ জনের মধ্যে পাঁচ জনকে হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

গত সোমবার ভোরে শিশু তুহিনের কান, লিঙ্গ ও গলা কেটে হত্যা করে বাড়ির পাশের কদম গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়। এ সময় দেখা যায় তুহিনের পেটে দু’টি ছুরি প্রবেশ করানো। ছুরি দু’টিতে একই গ্রামের বাসিন্দা ছালাতুল ও সোলেমানের নাম লেখা ছিল। ওইদিন রাতেই তুহিনের মা মনিরা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের নামে দিরাই থানায় মামলা দায়ের করেন।

** শিশু তুহিন হত্যায় মামলা করলেন মা, আসামি অজ্ঞাতনামা
** নৃশংস অত্যাচার করে শিশুকে হত্যা
** নিহত শিশু তুহিনের বাবাসহ ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে
** তুহিনের শরীরে বিদ্ধ ছুরিতে দুই নাম কেন, ঘুরছে প্রশ্ন
** শিশু তুহিন হত্যা: সন্দেহের জালে পরিবার

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৫, ২০১৯
এসআরএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   সুনামগঞ্জ শিশু তুহিন হত্যা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-15 16:44:47