ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

যানজট কমাতে শুধু মেট্রোরেল নয়, দরকার সুষ্ঠু পরিবহন ব্যবস্থাপনাও

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ২, ২০২৪
যানজট কমাতে শুধু মেট্রোরেল নয়, দরকার সুষ্ঠু পরিবহন ব্যবস্থাপনাও ছবি: ডিএইচ বাদল

ঢাকা: ঢাকায় ২০৩৫ সালের মধ্যে ছয়টি লাইন চালু হওয়ার পরও নগরের ১৭ থেকে ১৯ শতাংশ যাত্রী চলবে মেট্রোরেলে। তখনো ৫০ শতাংশের বেশি যাত্রী বাসের মাধ্যমে যাতায়াত করবেন।

একটি মেট্রোরেল তৈরি করতে প্রয়োজন যখন ৪০ থেকে ৫০ হাজার কোটি টাকা, সেখানে এ টাকায় ঢাকার চারপাশে গণপরিবহন ব্যবস্থা চালু করা যাবে। বাংলাদেশে এখনো বিশ্বের অনেক দেশ থেকে মটোরাইজড গাড়ি কম। এদিকে মনোযোগ দেওয়া যেতে পারে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত ‘পুরোনো ঢাকার ব্যবসা-বাণিজ্যে যানজট ও উত্তরণের উপায় চিহ্নিতকরণ’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) সাবেক পরিচালক এস এম সালেহ উদ্দিন এ কথা বলেন।  

মেট্রোরেল তৈরির পরিকল্পনার ঘাটতি উল্লেখ করে এস এম সালেহ উদ্দিন বলেন, মেট্রোরেলের লাইন-৬ নির্মাণের সময় আরও দুটি লাইন তৈরির কথা ছিল এসটিপিতে। কিন্তু আরএসটিপি যখন করা হয় এ লাইন বাদ দিয়ে লিনিয়ার লাইনের দিকে চলে গেছি।  আমরা ডেভেলপমেন্ট ওরিয়েন্টেড ট্রানজিট করেছি। কিন্তু আমাদের হওয়া উচিত ট্রানজিট ওরিয়েন্টেড ডেভেলপমেন্ট।

মেট্রো সিস্টেম এমন হওয়া উচিত ছিল যেখানে একটা লাইন থেকে অন্য লাইনে হেঁটেই চলে যাওয়া যাবে। একইসঙ্গে সার্কুলার মেট্রোরেল হলে সবাই উপকৃত হবে বলেও মন্তব্য করেন এ বিশেষজ্ঞ।  

নগর পরিকল্পনার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা তুলে ধরে এ বিশেষজ্ঞ বলেন, সব দেশে নগর গড়ে ওঠে পরিকল্পিতভাবে। কিন্তু আমরা আগে ঘরবাড়ি, দোকানপাট, হাসপাতাল নির্মাণ করেছি, অথচ রাস্তা নির্মাণ করিনি। ফলে আমাদের সমস্যা অত্যন্ত প্রবল। আজকে বিশ্বের মধ্যে অত্যন্ত খারাপ অবস্থা আমাদের। স্বাস্থ্য, যানজট, দূষণ সব দিক থেকে।

ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) পরিচালক নীলিমা আক্তার বলেন, পুরান ঢাকার যানবাহন ব্যবস্থার জন্যে বিশেষায়িত পরিকল্পনার প্রয়োজন। চলমান বিআরটি প্রকল্পে খোঁড়াখুঁড়ি, সমালোচনার পরে এ প্রকল্প আর বাড়ানো হচ্ছে না।  

ঢাকার যানজট নিরসনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ভূমিকা নিচ্ছে বলে জানান সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।  

তিনি বলেন, ফুটপাত দখলমুক্ত করলে বা পুনর্বাসন করলে আবারও জড়ো হয়ে যান হকারেরা। অনেকটা প্রবহমান নদী থেকে আবর্জনা তুললে যেমন আবার সব পূর্ণ হয়ে যায়।  

ঢাকার ভেতরে থেকে আন্তঃজেলা বাস সরানো প্রসঙ্গে মিজানুর রহমান বলেন, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের গাড়িগুলো কাঁচপুরে বাসস্ট্যান্ড করে সেখানে নিয়ে যাওয়া হবে ৩-৪ মাসের মধ্যে। আর কেরানীগঞ্জে দক্ষিণবঙ্গের গাড়ির জন্য বাসস্ট্যান্ডের জায়গা খোঁজা হচ্ছে। এরপর সায়দাবাদ বাসস্ট্যান্ড কেবল সিটি বাসের জন্যে ব্যবহার হবে।  

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, কাঁচপুরে বাসস্ট্যান্ড চালু হলে ঢাকার ভেতরে যত্রতত্র দূরপাল্লার বাস কাউন্টার সরানো হবে। কোনোভাবেই বাস কাউন্টার রাখতে দেওয়া হবে না।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫০১ ঘণ্টা, এপ্রিল ০২, ২০২৪
এনবি/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।