ঢাকা, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

নগরীর সমস্যা নিয়ে পোস্টার: তরুণ কবি শামীম আশরাফ গ্রেপ্তার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২৪
নগরীর সমস্যা নিয়ে পোস্টার: তরুণ কবি শামীম আশরাফ গ্রেপ্তার শামীম আশরাফ

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে পোস্টার ডিজাইন করায় তরুণ কবি ও গ্রাফিক ডিজাইনার শামীম আশরাফকে (৩২) গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।  

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয় বলে জানান ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন।

 

রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে শহরের আঠারোবাড়ি বিল্ডিং এলাকায় অবস্থিত শামীম আশরাফের মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘গ্রাফিটি’ থেকে তাকে আটক করা হয়।  

শামীম আশরাফের গ্রেপ্তারের ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শহরবাসীর মাঝে পক্ষে-বিপক্ষে নানা আলোচনা ও সমালোচনা সৃষ্টি হয়।  

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাঈন উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, শামীম আশরাফকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে বিস্তারিত জানানো হবে।  

শামীম আশরাফের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘গ্রাফিটি’র অন্যান্য কর্মীরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, গতকাল রাত সাড়ে ৯টার দিকে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমিনসহ ছাত্রলীগের বেশকিছু নেতা গ্রাফিটিতে এসে মসিক মেয়র মো. ইকরামুল হক টিটুর বিরুদ্ধে অপপ্রচারমূলক পোস্টার না তৈরি করতে বলেন। ওই সময় বিষয়টি তারা ফেসবুকে লাইভ করছিলেন। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পর গ্রাফিটিতে আসেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও মেয়র টিটুর বড় ভাই মো. আমিনুল হক শামীম। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পর পুলিশ শামীম আশরাফকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।  

ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমিন সাংবাদিকদের বলেন, কারও বিরুদ্ধে কোনো সমালোচনা থাকলে, সেটি যৌক্তিকভাবেও প্রকাশ্যে করা যায়। কিন্তু শামীম আশরাফ সাবেক মেয়রের বিরুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে অপপ্রচারের জন্য বেনামি পোস্টার দিয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়াচ্ছেন। তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে হাতেনাতে এর প্রমাণ পাওয়া গেছে।  

এদিকে এক তরুণ কবি ও গ্রাফিক ডিজাইনার শামীম আশরাফের ওপর অন্যায়ভাবে চড়াও হওয়ার অভিযোগ তুলে এবং গ্রাফিটিতে বসে ফেসবুক লাইভে মানহানিকর মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেয়র প্রার্থী মো. এহতেশামুল আলম।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, সিটি নির্বাচনে আমি একজন মেয়র প্রার্থী। এ অবস্থায় অপর একজন মেয়র প্রার্থীর বড় ভাই (আমিনুল হক শামীম) প্রকাশ্য জনসম্মুখে এবং ফেসবুক লাইভে আমার নাম জড়িয়ে মানহানিকর অপপ্রচার করেছেন। মূলত বিগত সংসদ নির্বাচনে তার পক্ষে নির্বাচন না করায় এবং নৌকার পক্ষে নির্বাচন করায় তিনি আমার ওপর ব্যক্তিগত ক্ষোভ থেকে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছেন। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

এ সময় তিনি ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে দেখতে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আরও বলেন, শান্ত ময়মনসিংহকে যারা অশান্ত করতে চাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিন। অন্যথায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শিক নেতাকর্মীরা তীব্র গণজোয়ার সৃষ্টি করলে এর দায়ভার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসাবে আমি নিতে পারব না।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফারামার্জ আল নূর রাজীব, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সালাম, আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম সারোয়ার, অ্যাডভোকেট প্রীতি, মামুন, সাবেক ভিপি মুকুল সরকার, মহানগর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক রাসেল পাঠান প্রমুখ।  

গতরাতের ঘটনার সময় ফেসবুকে লাইভ চলাকালে আমিনুল হক শামীম গ্রেপ্তার হওয়া শামীম আশরাফকে বলেন, এই গ্রাফিক ডিজাইনের কাজটি আলম সাব করিয়েছে। এ সময় শামীম আশরাফ তাকে বলেন, এহতেশামুল আলম আমার এখানে কাজ করান না।

প্রসঙ্গত, আগামী ৯ মার্চ ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯২০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২৪
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।