ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

বাবা-ছেলেকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেফতার আসামিরা রিমান্ডে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট     | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫৯ ঘণ্টা, মার্চ ৩০, ২০২৩
বাবা-ছেলেকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেফতার আসামিরা রিমান্ডে

ফরিদপুর: ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলায় শ্রেণিকক্ষে আটকে বাবা ও ছেলেকে অমানবিক নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেফতার চার আসামিকে একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।  

বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) দুপুরে ফরিদপুর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের ৫ নম্বর আমলি আদালতে আসামিদের পাঁচদিন করে রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ।

শুনানি শেষে ওই আদালতের বিচারক মো. মারুফ হাসান প্রত্যেক আসামিকে একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

একই দিন সন্ধ্যায় ফরিদপুর কোর্ট পুলিশের জিআরও মো. ইউসুফ শেখ বাংলানিউজকে এ তথ্যে নিশ্চিত করেছেন।  

তবে রিমান্ড শুনানি শেষে আসামিদের জেলহাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পরবর্তীকালে আসামিদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞেসাবাদ করা হবে বলে জানান মধুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম।  

আসামিরা হলেন- ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মাঝকান্দি গ্রামের আসাদুল মোল্যার ছেলে ফরমান মোল্যা (২১), একই গ্রামের শাহজাহান মোল্যার ছেলে সজীব মোল্যা (২২), একই উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের নবিয়াল শেখের ছেলে জুবায়ের শেখ (২০) ও নূর ইসলাম ভূঁইয়ার ছেলে হাসিব ভূঁইয়া (২০)।  

এর আগে গত ২৭ মার্চ ফরিদপুর জেলাসহ জেলার বাইরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ওই দিনই তাদের ফরিদপুরের কোর্টে পাঠানো0 হয়। তবে আদালত ৩০ মার্চ শুনানির দিন ধার্য করেন।  

মধুখালী থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, গ্রেফতার ওই চার আসামিকে আদালতের কাছে পাঁচদিন করে রিমান্ড আবেদন করা হয়। তবে আদালত শুনানি শেষে একদিন করে ওই চার আসামির রিমান্ড মঞ্জুর করেন।  

ফরিদপুর সহকারী পুলিশ সুপার (মধুখালী সার্কেল) সুমন কর বাংলানিউজকে বলেন, বাবা-ছেলেকে নির্যাতনের ঘটনায় পুলিশ এ পর্যন্ত পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করেছে। এর মধ্যে প্রধান আসামি কুতুবউদ্দিন আদালত থেকে জামিনে আছেন। এছাড়া এ মামলার অন্য দুই আসামি আদালত থেকে জামিনে আছেন। আর সদ্য গ্রেফতার চার আসামিকে একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।  

তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত অন্য আসামিদেরও গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। অতি শিগগিরই বাকি আসামিদের গ্রেফতার করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ মার্চ মধুখালীর জাহাপুর ইউনিয়নের আড়ুয়াকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি শ্রেণিকক্ষে ইয়ামিন মৃধা (৪০) ও তার ছেলে রাজন মৃধাকে (১৫) মারধর ও নির্মম নির্যাতন করা হয়। এরপর নির্যাতনের ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হলে নিন্দার ঝড় ওঠে। ওই ভিডিওতে মাঝকান্দির নাজিমউদ্দিনের মেয়ে রুমার নেতৃত্বে পাশবিক নির্যাতনের ভয়াবহতা ফুটে ওঠে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রুমা গ্রেফতার হননি। তবে, তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে জানান মধুখালী থানার ওসি শহিদুল ইসলাম।

>> ফরিদপুরে বাবা-ছেলেকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, গ্রেফতার ৪

>> ফরিদপুরে শ্রেণিকক্ষে আটকে বাবা-ছেলেকে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ৩০, ২০২৩
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।