ঢাকা, শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

শিশুটির জন্ম উড়োজাহাজে...

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮০৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭
শিশুটির জন্ম উড়োজাহাজে... উড়োজাহাজে জন্ম নেওয়া নবজাতক। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: প্রায় ৩৯ হাজার ফুট উপরে উড়োজাহাজে ফুটফুটে এক কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এক নারী যাত্রী। মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর) সৌদি আরব থেকে মুলতান যাওয়ার পথে আকাশে ওড়া অবস্থায় পাকিস্তানের সরকারি বিমানসংস্থা পিআইএ-এর একটি ফ্লাইটে এ নবজাতকের জন্ম হয়। 

বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে এ কথা জানানো হয়েছে। এর আগে নিজস্ব অফিসিয়াল টুইটারে ফুটফুটে শিশুটির ছবি পোস্ট করে একটি টুইট করেছে পিআইএ।

 

সেখানে দেখা যায়, ফুটফুটে শিশুটিকে কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন উড়োজাহাজের ক্রু।  

খবরে বলা হয়, সৌদি আরবের মদিনা থেকে অন্তঃসত্ত্বা ওই নারী নিজ দেশ পাকিস্তানের মুলতানে ফিরছিলেন। পিআইএ-এর পিকে-৭১৬ নম্বর ফ্লাইটে ওঠার পরই তার প্রসব বেদনা শুরু হয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে সহায়তায় এগিয়ে আসেন কেবিন ক্রুরা। উড়োজাহাজের ক্রুদের সহায়তায় একটি কন্যাশিশুর জন্ম দেন ওই নারী।  

টুইটারে এক বার্তায় পিআইএ বলেছে, প্রতিনিয়তই আমাদের জীবনে অলৌকিক ঘটনা ঘটে। আজ (মঙ্গলবার) মদিনা থেকে মুলতান যাওয়ার পথেও অলৌকিক কিছু ঘটলো। উড়ন্ত উড়োজাহাজেই এই ফুটফুটে শিশুর জন্ম হয়েছে। শিশুটির বাবা-মা ফ্লাইটের কেবিন ক্রুদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। কারণ এমন জরুরি পরিস্থিতিতে কেবল কেবিন ক্রুরাই শিশুটির জন্ম দেওয়ার ব্যাপারে সাহসী ভূমিকা পালন করেছেন। ’

নবজাতক জন্মের খবরটি টুইট করে জানায় পিআইএ।  ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া এদিকে টুইটারে সদ্য জন্ম নেওয়া শিশুটির ছবিসহ খবরটি পোস্ট করলে অভিনন্দন জানিয়েছেন অনেকেই। আবার কেউ কেউ গর্ভাবস্থায় উড়োজাহাজে ভ্রমণ করায় শিশুটির মা-বাবা এবং এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের সমালোচনাও করেছেন।   

এ বিষয়ে পিআইএ-এর মুখপাত্র মাসুদ তাজওয়ার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, পরবর্তীতে আমরা চিকিৎসকদের কাছ থেকে জেনেছি- নির্দিষ্ট সময়ের আগেই উড়োজাহাজে ওই শিশুর জন্ম হয়েছে। তবে গর্ভাবস্থার শেষ পর্যায়ে ছিলেন না ওই নারী যাত্রী।

‘গর্ভাবস্থার শেষ পর্যায়ে থাকা কোনো নারীর উড়োজাহাজে ভ্রমণ উচিত নয়। কারণ এতে মা ও শিশুর জীবনের ঝুঁকি হতে পারে। ’ 

জানা যায়, সাধারণত সর্বোচ্চ ৩৬ সপ্তাহ পর্যন্ত অন্তঃসত্ত্বা নারীদের ভ্রমণের অনুমতি দিয়ে থাকে বিভিন্ন এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। তবে কোনো যাত্রী ২৮ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা হলেই ভ্রমণের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের সই করা পত্র কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।  

উল্লেখ্য, গত বছর সৌদি আরব থেকে ভারতে ফেরার পথে জেট এয়ারে এক নারী যাত্রী একটি শিশুর জন্ম দেন। তাৎক্ষণিক উপহার হিসেবে ওই নবজাতককে সারা জীবনের ফ্রি এয়ার টিকিট দেওয়ার ঘোষণা দেয় জেট কর্তৃপক্ষ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৪০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭
এমএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa