ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৫ জুন ২০২১, ০৪ জিলকদ ১৪৪২

শিল্প-সাহিত্য

দুয়ারে পঁচিশে বৈশাখ, এবারও থাকছে না আয়োজন

ফিচার রিপোর্টার  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১১২ ঘণ্টা, মে ৮, ২০২১
দুয়ারে পঁচিশে বৈশাখ, এবারও থাকছে না আয়োজন

ঢাকা: বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকাশে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অবদান অসামান্য।  কবিতা, উপন্যাস, ছোটগল্প ও অসংখ্য গানের মধ্য দিয়ে বাংলা সাহিত্যকে পরিপূর্ণতা দিয়েছেন তিনি।

বিশ্বের দরবারে বাঙালিদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াতেও শিখিয়েছেন কবিগুরু। তাইতো বাঙালির অস্তিত্বে মিশে আছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

গল্প, উপন্যাস, কবিতা, সুর ও বিচিত্র গানের বাণীতে, অসাধারণ সব দার্শনিক চিন্তাসমৃদ্ধ প্রবন্ধ, সমাজ ও রাষ্ট্রনীতি সংলগ্ন গভীর জীবনবাদী চিন্তাজাগানিয়া লেখা, এমনকী চিত্রকলায়ও সর্বত্রই রবীন্দ্রনাথ চিরনবীন।

শনিবার (৮ মে, ২৫ বৈশাখ) বাংলা সাহিত্যের মহীরুহ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০তম জন্মদিন। বাংলা ১২৬৮ সালের ২৫ বৈশাখ (ইংরেজি ১৮৬১ সালের ৮ মে) কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন কবি।

রবীন্দ্রনাথের কাছ থেকেই নেওয়া হয়েছে আমাদের জাতীয় সঙ্গীত ও ‘বাংলাদেশ’ নামের বানানটি। তার কবিতা ও গান বাঙালির যাপিতজীবনের সঙ্গে অবিচ্ছেদ্যভাবে জড়িয়ে আছে। তার রচনাবলী আমাদের প্রেরণার আলোকরশ্মি হয়ে পথ দেখায়।

করোনা মহামারির কারণে কবির জন্মদিনে এবার থাকছে না কোনো আয়োজন। তবে ভার্যুোয়াল আয়োজনে গান, কথা, নৃত্য ও গীতিনৃত্যনাট্যের মধ্য দিয়ে কবিকে স্মরণ করবে তার সুহৃদ ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা।

বাংলাদেশ সময়: ০০১৫ ঘণ্টা, মে ০৮, ২০২১
এইচএমএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa