ঢাকা, শুক্রবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ সফর ১৪৪২

শিল্প-সাহিত্য

ট্র্যাব অ্যাওয়ার্ড আজীবন সম্মাননায় ভূষিত আতাউর-ফরিদা

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৫২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারী ৭, ২০২০
ট্র্যাব অ্যাওয়ার্ড আজীবন সম্মাননায় ভূষিত আতাউর-ফরিদা

ঢাকা: অনুষ্ঠিত হলো টেলিভিশন রিপোটার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ট্র্যাব) আয়োজিত বেস্টওয়ে গ্রুপ- ২০তম ট্র্যাব অ্যাওয়ার্ড প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন বিশিষ্ট নাট্যজন মঞ্চসারথি আতাউর রহমান এবং বরেণ্য লালনসঙ্গীত শিল্পী ফরিদা পারভীন।

সোমবার (৬ জানুয়ারি) রাতে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী ও আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বেস্টওয়ে গ্রুপের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি কাদের মনসুর।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, গুণীজনদের সংবর্ধিত করা একটি মহৎ উদ্যোগ। আমাদের শিল্পের বিকশিত রূপ দেখতে হলে বাঙালির নিজস্ব রূপ দেখতে হবে। ঐতিহ্যকে খুঁজতে গেলে বাঙালিত্বে ফিরে যেতে হবে।

গণমাধ্যমকে অবাধ করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার তথ্যপ্রবাহকে অবাধ করেছে। দেশে আগে যেখানে তথ্য আদান প্রদান বা প্রচারে বাধা ছিল, সেটি এখন উল্টো। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দ্রুত গতিতে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশে এখন ভিক্ষুক পাওয়া যায় না। প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ। অথচ এখনো প্রধানমন্ত্রীর অনেক বক্তব্য ছাপা হয় পত্রিকার তৃতীয় পৃষ্ঠায় প্রথম কলামে। আর উপজেলা বা ইউনিয়ন পর্যায়ে ছাত্রলীগের কেউ শ্লীলতাহানি করলে তা প্রথম পৃষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় স্থান পায়। আপনারা সমালোচনা বা নেগেটিভ নিউজ ছাপুন, তার সঙ্গে পজেটিভ নিউজগুলোও একটু ভালো করে প্রকাশ করুন। আমরা দেশের বিবর্ণ চিত্রকে বিস্তীর্ণ চিত্রতে পরিণত করেছি। সেটিও জনগণের সামনে তুলে ধরুন।

আয়োজনে সম্মাননা পাওয়ার অনুভূতি ব্যক্ত করে আতাউর রহমান বলেন, এই সম্মাননা পাওয়া একটি উদযানের অংশ। বাংলাদেশের মানুষের মতো আর কোনো জাতি এতোটা উদযাপন করে না। আমারা বাঙালিরা সামান্যতেই উদযাপন করি এবং এটিই আমাদের আনন্দ। গ্রামে জন্মগ্রহণ করে আজ এই মঞ্চে দাঁড়িয়ে আছি, এখান থেকেই একদিন মৃত্যুবরণ করবো, এটাই প্রত্যাশা।

ফরিদা পারভীন বলেন, আমাকে এভাবে সম্মানিত করার জন্য বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। পুরস্কার সামনে এগোনোর অনুপ্রেরণা। এটি দায়িত্ববোধ বাড়িয়ে দেয়। সেই জায়গা থেকে সত্য ও সুন্দর হোক আমাদের সকলের পথচলা, এই কামনা।

অনুষ্ঠানে আজীবন সম্মাননার পাশাপাশি স্বনামধন্য চিত্রনায়ক-নায়িকা, সংগীত শিল্পীসহ মিডিয়ার বিভিন্ন সেক্টরে অবদান রাখার জন্য বিভিন্নজনকে বেস্টওয়ে গ্রুপ- ২০তম ট্র্যাব অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। এদের মধ্যে চলচ্চিত্র পরিচালক অরুণ চৌধুরী ও রাজু আলীম, চিত্রনায়ক ফেরদৌস, সংগীত শিল্পী মেহরিন, সম্পা দাশ প্রমুখ উল্লেখযোগ্য।

অনুভূতি ব্যক্ত করে চিত্রনায়ক ফেরদৌস বলেন, বছরের প্রথমভাগে পুরস্কার পেয়ে বেশ ভালো লাগছে। শিল্পীসত্তার জন্য পুরস্কার অনেক গুরুত্পূর্ণ একটি বিষয়। এরমধ্য দিয়ে তার কাজকে মূল্যায়ন করা হয়।

বাংলা চলচ্চিত্র বর্তমানে অনেক ভালো করছে এবং মুজিব বর্ষ উপলক্ষে এ বছর আরও অনেক ভালো ভালো চলচ্চিত্র প্রকাশ পাবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।  

সম্মাননা প্রদান শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

বাংলাদেশ সময়: ০০২৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৭, ২০২০
এইচএমএস/এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa