bangla news

গ্যালারি একুশের দেয়াল জুড়ে প্রকৃতির গান

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-১৭ ১১:০৫:০৮ এএম
গ্যালারি টুয়েন্টি ওয়ানে শিল্পকর্ম প্রদর্শনীতে নৌমন্ত্রী-ছবি-শাকিল আহমেদ

গ্যালারি টুয়েন্টি ওয়ানে শিল্পকর্ম প্রদর্শনীতে নৌমন্ত্রী-ছবি-শাকিল আহমেদ

ঢাকা: ‘অ্যাবস্ট্রাকশন অন কোলাজ পেইন্টিং’ শিরোনামে রঙ-তুলির আঁচড়ে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী চিত্রশিল্পী খুরশীদ আলম সেলিম গেয়েছেন প্রকৃতির গান। মিক্সড মিডিয়ায় আঁকা বিমূর্ত ধারার চিত্রকলায় তিনি ফুটিয়ে তুলেছেন প্রকৃতির বিভিন্ন রূপ।

আর সেসব ছবি নিয়েই রাজধানীর গ্যালারি টুয়েন্টি ওয়ানে প্রদর্শিত হচ্ছে শিল্পীর একক শিল্পকর্ম প্রদর্শনী।

শনিবার (১৭ মার্চ) সন্ধ্যায় এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক নজরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গ্যালারি টুয়েন্টি ওয়ানের পরিচালক শামীম সুব্রানা। 

প্রদর্শনী ঘুরে নৌমন্ত্রী বলেন, একজন চিত্রশিল্পী তার মনের রংগুলোকে বাস্তবে রূপান্তরিত করে আমাদের সামনে তুলে ধরে। এসব ছবির মধ্যে থাকে অনেক গভীরতা ও ভাবরস। শিল্পীর আঁকা এ ছবিগুলো প্রকৃতির কথা কথা বলে, সৌন্দর্যের কথা বলে।

চিত্রকলা প্রদর্শনী নিয়ে শিল্পী খুরশীদ আলম সেলিম বলেন, প্রায় চার দশক ধরে কালার অ্যান্ড ফর্ম নিয়ে কাজ করছি। আমার প্রচণ্ড ভালোলাগার বিষয় প্রকৃতি। জন্মভূমির ফুল, ফল আর প্রকৃতির প্রেমে পড়েছি। সে কথাই এবার তুলে ধরা হয়েছে ক্যানভাসে।

মিক্সড মিডিয়ায় আঁকা ৪০টি ছবির পাশাপাশি প্রদর্শনীতে ঠাঁই পেয়েছে ‘এস অ্যান্ড টি’ ফ্যাশন লেভেলের বেশক’টি নমুনা। এগুলো সম্পর্কে শিল্পী বলেন, একসময় লং আইল্যান্ডে গড়ে তুলি গ্যালারি নিউ ইয়র্ক আর্ট কানেকশান। সেখানে ঘুরতে এসে চিত্রকর্মে মুগ্ধ হন জার্মান চিত্রকর ও ফ্যাশন ডিজাইনার ক্লাউডিয়া তেহেদা। পরে দু’জন মিলে শুরু করি ‘এস অ্যান্ড টি’ শিরোনামে এক ফ্যাশন লেভেল। ক্লাউডিয়া পোশাকে ফুটিয়ে তুলি ছাপচিত্রের নমুনা।

২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকে স্বর্ণপদক বিজয়ী চিত্রশিল্পী সেলিম জাতিসংঘের শান্তি-সম্প্রীতি কার্যক্রমেও অংশ নিয়েছেন। জাপান, সুইডেন, অস্ট্রিয়া, চীন, ভারত, বাংলাদেশ, জার্মানি, ফ্রান্স, বেলজিয়ামসহ বিশ্বের নানা দেশে তিনি প্রদর্শনী করেছেন। ২০০৩ সালে গ্রিসে জিতেছেন ইউনেস্কো অ্যাওয়ার্ড। পরে এশিয়ান হেরিটেজ কমিটিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। 

সবার জন্য উন্মুক্ত এ প্রদর্শনীটি চলবে ২৭ মার্চ পর্যন্ত। খোলা থাকবে প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৪ ঘণ্টা, মার্চ ১৭, ২০১৮
এইচএমএস/আরআর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2018-03-17 11:05:08