ঢাকা, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

ফুটবল

নেইমারের পেনাল্টি মিস, নঁতের মাঠে ধরাশায়ী পিএসজি

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২২
নেইমারের পেনাল্টি মিস, নঁতের মাঠে ধরাশায়ী পিএসজি

চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে লিওনেল মেসির পেনাল্টি মিসের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার একই ভাগ্যবরণ করলেন নেইমার। যদিও পিএসজির একমাত্র গোলটি এসেছে এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের পা থেকেই।

কিন্তু নঁতের ধারালো আক্রমণের কাছে পরাজিত হয়েছে পচেত্তিনোর শিষ্যরা।

শনিবার রাতে লিগ ওয়ানের স্বাগতিক নান্টেসের কাছে ৩-১ গোলে হেরেছে পিএসজি।  

ঘরের মাঠে প্রথমার্ধেই তিন গোল করে চালকের আসনে বসে নঁতে। পিছিয়ে পড়ে সমতায় ফিরতে মরিয়া মেসি-নেইমাররা সুযোগ বানিয়েও গোল মিসের মহড়ায় নামেন। সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করে প্রথমার্ধে পায়নি গোলের দেখা।  

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে নেইমারের গোল ম্যাচে ফেরার আভাস দিলেও সেই নেইমারই পেনাল্টি মিস করে ডুবিয়েছেন পিএসজিকে। গোল মিসের মহড়ায় নেমেছিলেন এমবাপ্পে ও মেসিও। দুজনই গোলরক্ষককে একা পেয়েও নিখুত ফিনিশিং করতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত হার নিয়ে ফিরতে হয়েছে পিএসজিকে।

চতুর্থ মিনিটে কাউন্টার আক্রমণে গোল করে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে উঠে সিমনের বাড়ানোর বল বক্সের ভেতর নিয়ন্ত্রণে নেন কোলো মুয়ানি। পোস্ট ছেড়ে এগিয়ে আসেন কেইলর নাভাস, কিন্তু মুয়ানির শট আটকাতে পারেননি এই কোস্টারিকান গোলরক্ষক। দূরের পোস্টে লক্ষ্যভেদ করেন মুয়ানি। অষ্টম মিনিটে দারুনণ সুযোগ নষ্ট করেন লিওনেল মেসি। বক্সের ভেতর থেকে গোলরক্ষকের সোজাসুজি শট নেন এই আর্জেন্টাইন তারকা।

১২তম মিনিটে গিরিত্তর বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া শট বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে রক্ষা করেন কেইলর নাভাস। ১৬তম মিনিটে দুর্দান্ত গোল করে ব্যবধান বাড়ান নঁতের কুইন্টিন মারলিন। ডি-বক্সের ভেতর থেকে বাঁ পায়ের গতির শটে দূরের পোস্টের ওপরের দিকে লক্ষ্যভেদ করেন এই ফরাসি ফরোয়ার্ড। এরপর ২৬তম ও ২৭তম মিনিটে দুই দুইবার গোলরক্ষককে একা পেয়েও বল জালে জড়াতে পারেনি নেইমার। দুইবারই গোলরক্ষকের সোজাসুজি মারেন এই ব্রাজিলিয়ান।

২৯তম মিনিটে আবারো পিএসজির ত্রাতা হয়ে আসেন নাভাস। বক্সের ভেতরের কোনাকুনি থেকে সিমনের গতির শট পোস্ট ছেড়ে খানিকটা সামনে এসে ঠেকিয়ে দেন তিনি। কর্নার পায় নঁতে।  

৪৪তম মিনিটে বক্সের সামনে কিলিয়ান এমবাপ্পেকে পেছন থেকে ফাউল করেন ডেনিশ আপিয়া। রেফারি প্রথমে সরাসরি লাল কার্ড দেখালেও ভিএআর দেখে লাল কার্ড তুলে হলুদ কার্ড দেখেন আপিয়াকে। প্রথমার্ধের যোগ করা ছয় মিনিটের মাথায় তিন গোলে এগিয়ে যায় নঁতে। পেনাল্টি থেকে গোল করেন লুদোভিচ ব্লাস।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই পিএসজিকে ম্যাচে ফেরার শক্তি জোগান নেইমার। লিওনেল মেসির সঙ্গে রসায়ন জমিয়ে ৩-১ ব্যবধান করেন এই ব্রাজিলিয়ান তারকা। ৫৯ মিনিটে ব্যবধান কমানোর সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি নেইমার। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। তার নেওয়া দুর্বল শট সহজেই রুখে দিয়েছেন নান্টেস গোলরক্ষক।  

৭৪তম মিনিটে সবচেয়ে সহজ সুযোগ নষ্ট করেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। গোলরক্ষককে একা পেয়েও ক্রস বারের ওপর বল মেরে হতাশা প্রকাশ করেন এই বিশ্বকাপ জয়ী ফুটবলার। নেইমারকে তুলে নিয়ে দি মারিয়াকে নামান পচেত্তিনো। মাউরো ইকার্দি, আশরাফ হাকিমিরা নেমে শেষ দিকে বেশ কয়েকবার নঁতের রক্ষণ ভাঙার চেষ্টা করলেও তা আর পারেনি।

তবে হারলেও পয়েন্ট তালিকায় পিএসজির অবস্থানের কোনো পরিবর্তন আসেনি। ২৫ ম্যাচে ৫৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থাকল তারা। সমান ম্যাচে ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছে নঁতে।

বাংলাদেশ সময়: ১০১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২২
এমএইচএম 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।