ঢাকা, সোমবার, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ফিচার

শূন্য হাতে ঢাকায় এসে বাবুল এখন আড়তমালিক 

জি এম মুজিবুর, সিনিয়র ফটো করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৫৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০২১
শূন্য হাতে ঢাকায় এসে বাবুল এখন আড়তমালিক  মো. বাবুল মিয়া

ঢাকা: ৪০ বছর আগে গ্রাম থেকে ঢাকায় আসেন মো. বাবুল মিয়া (৬৫)। ওঠেন কাওরান বাজারে পরিচিত একজনের বাসায়।

সেখানে তার সঙ্গে শূন্য হাতে শুরু করেন ব্যবসা।  

চাঁদপুর জেলার বাসিন্দা বাবুল এখন পাইকারি ব্যবসায়ী। কাওরান বাজারে আছে তার বেলের আড়ত। বাজারে তিনি পরিচিত মুখ। কঠোর পরিশ্রম করে তিনি সেই ব্যবসা ধরে রাখছেন।  

ব্যবসা দিয়েই পরিবার চালানোর পাশাপাশি পাঁচ ভাইবোনের বিয়ে দিয়েছেন বাবুল। চার ছেলে ও এক মেয়ে পড়াশোনা করেছেন। এখন তারা বিভিন্ন কাজ করছেন।  

মো. বাবুল মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, আমি প্রায় ৪০ বছর আগে গ্রাম থেকে শূন্য হাতে ঢাকায় এসেছিলাম। কষ্ট করে স্বাবলম্বী হয়েছি। আমার ভাইবোনদের ও ছেলেমেয়েদের মানুষের মতো মানুষ করার চেষ্টা করেছি। এখনও নিজে কাজ করে যাচ্ছি।  

তিনি বলেন, প্রথম কারওরান বাজারে এসে নানা ধরনের ব্যবসা-বাণিজ্য করেছিলাম। এখন শুধু বেল বিক্রি করি। কতবেলের মৌসুম শেষ হলে মিষ্টি বেল বিক্রি করব।

কতবেল সংগ্রহের বিষয়ে বাবুল বলেন, মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, যশোর, খুলনাসহ বিভিন্ন জেলা থেকে কতবেল আসে। আমরা বস্তা চুক্তি করে ক্রয় করি। আর খুচরা ও পাইকারি বিক্রি করি। এ বছর বেলের ফলন ভালো হয়েছে। কিন্তু যে হারে বেল আসছে, তেমন বিক্রি করতে পারছি না।  

মোহাম্মদপুর থেকে কতবেল কিনতে আসা মালা বেগম বাংলানিউজকে বলেন, আমি এলাকাতে খুচরা বিক্রি করি। এখান থেকে পাইকারি নিয়ে যাই প্রতি পিস ১০ টাকা। সেগুলো ১২ থেকে ২৫ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করি। তবে অন্য সময়ের থেকে এবার বিক্রি কম।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৫৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০২১
জিএমএম/জেএইচটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa