[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৫, ২৪ জুন ২০১৮

bangla news

প্লেন দুর্ঘটনায় স্বামীসহ ছিলেন রুয়েট শিক্ষিকা ‘হাসি’

শরীফ সুমন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-১২ ৭:৪০:০৪ পিএম
ইউএস-বাংলা প্লেনে উঠার আগে রুয়েট শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসির ফেসবুকে দেওয়া ছবি ও স্ট্যোটাস

ইউএস-বাংলা প্লেনে উঠার আগে রুয়েট শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসির ফেসবুকে দেওয়া ছবি ও স্ট্যোটাস

রাজশাহী: নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের প্লেনে স্বামীসহ ছিলেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসি। ১৫ দিনের ছুটিতে তারা বেড়াতে যাচ্ছিলেন। কিন্তু এর আগেই তাদের প্লেন বিধ্বস্ত হয়।

তবে রুয়েট শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসি বর্তমানে নেপালের কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে এবং তার স্বামী রকিবুলকে একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার (১২ মার্চ) সন্ধ্যায় রুয়েট কর্তৃপক্ষ বাংলানিউজ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

প্লেনে রুয়েট শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসিরুয়েট জনসংযোগ দফতরের উপ-পরিচালক জিএম মর্তুজা বাংলানিউজকে বলেন, ইমরানা কবির হাসি রুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক। তার বাড়ি টাঙ্গাইলে হলেও তিনি রাজশাহী মনানগরীর মোনাফের মোড় এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়ায় থাকেন। তার স্বামী রকিবুল একই বিভাগে ছাত্র ছিলেন। তিনি ঢাকায় চাকরি করেন।

বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ওই প্লেনে ইমরানা কবির হাসি ও তার স্বামী নেপালে যাচ্ছিলেন ছুটি কাটাতে। তিনি ১৫ দিনের ছুটিতে আছেন। নেপালে বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পাওয়ার পর তারা খোঁজ নিয়ে নিশ্চিত হতে পেরেছেন রুয়েট শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসি বর্তমানে নেপালের কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের  ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) এবং তার স্বামী রকিবুলকে একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দুর্ঘটনায় রুয়েটের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মনে দুঃখ-কষ্ট বিরাজ করছে। তারা সবাই দু’জনের জীবিত ফিরে আসা এবং সুস্থতা কামনা করেছেন।

রুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহা. রফিকুল আলম বেগ বাংলানিউজকে বলেন, ইমারানা কবির হাসি তার স্বামীসহ ওই প্লেনে চড়ে কাঠমান্ডুতে ছুটি কাটাতে যাচ্ছিলেন। এমন দুর্ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত। তারা দু’জনেই বিধ্বস্ত হওয়া ফ্লাইটে ছিলেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে। চিকিৎসাধীনদের তালিকায়ও তাদের নাম আছে।

এরমধ্যে ইমরানা কবির হাসি, ২০১৭ সালের ৩০ এপ্রিল রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে অ্যাসিসটেন্ট প্রফেসর হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি ও তার স্বামী রুয়েটের একই বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। এসময় তাদের সুস্থ হয়ে ফিরে আসার প্রার্থনা করা জন্য শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহ্বান জানান উপাচার্য মো. রফিকুল আলম বেগ।

এদিকে, ইমরানা কবির হাসির রাজশাহী মোন্নাফের মোড়ের ভাড়া বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে তা তালাবদ্ধ। মোন্নাফের মোড়ের এই দু’তলা বাড়ির দ্বিতীয় তলার একটি ফ্ল্যাটে তিনি ভাড়া থাকতেন।

বাড়ির মালিক আসাদুল্লাহ রঞ্জু বাংলানিউজকে বলেন, ‘২০১৫ সালের ১ ডিসেম্বর তারা আমার বাড়িতে ওঠেন। তার স্বামী ঢাকায় থাকেন। বুধবার (৭ মার্চ) ইমরানা কবির হাসি ঢাকার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। ঢাকায় স্বামীর কাছে যাবেন বলে তিনি তাদের জানিয়েছিলেন।’

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪০ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০১৮
এসএস/জিপি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বিএস২১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa