[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ৯ আষাঢ় ১৪২৫, ২২ জুন ২০১৮

bangla news

প্রতিটি নির্বাচনই অবাধ, সুষ্ঠ‍ু ও নিরপেক্ষ করতে চায় ইসি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-০৬ ৭:১৬:৫৪ পিএম
জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভা

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভা

গাইবান্ধা: নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘প্রতিটি নির্বাচনই অবাধ, সুষ্ঠ‍ু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্যভাবে করতে চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন যেমন সুষ্ঠ‍ু ও সব মহলের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়েছে, ঠিক সেভাবেই গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের উপ-নির্বাচনও যেকোনো মূল্যে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করার জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ মার্চ) দুপুরে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে উপ নির্বাচন উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

নির্বাচন কমিশনার বলেন, নির্বাচনী পরিবেশ পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত আমাদের অনুকূলে রয়েছে। সুষ্ঠু ও উৎসব মূখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটাররা যাতে ভালভাবে ভোট শেষে বাড়ি যেতে পারেন সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্যরা নিয়োজিত থাকবে।

এছাড়া নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে নির্বাহী ও বিচারিক হাকিম, মনিটরিং টিমসহ সংশ্লিষ্টরা মাঠে থাকবে। তাই এ নির্বাচন নিয়ে কোনো শঙ্কা নয়।

এসময় শঙ্কামুক্ত ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করার জন্য সব মহলের সহযোগিতাও চেয়েছেন নির্বাচন কমিশনার।

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ পালের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন-নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমান, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কাজী হাসান আহম্মেদ, রংপুর রেঞ্জের জিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, গাইবান্ধা পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ ও রিটানিং কর্মকর্তা ও রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জি. এম সাহাতাব উদ্দিন।

মতবিনিময় সভায় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা তাদের মতামত ও বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন। এসময় প্রার্থীরা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান। মতবিনিময় সভায় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ১৩ মার্চ গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী চার প্রার্থী হলেন- আওয়ামী লীগের (নৌকা প্রতিক) শিল্পপতি আফরুজা বারী, জাতীয় পার্টির (লাঙল প্রতিক) ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টির (আম প্রতিক) জিয়া জামান খাঁন ও গণফ্রন্টের (আম প্রতিক) শরিফুল ইসলাম।

সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ১৫ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত গাইবান্ধা-১ আসন। এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৩৮ হাজার ৫৫৬। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৬৩৪ হাজার ৯৩৪ ও নারী ভোটার ১ লাখ ৭৩ হাজার ৬২২ জন। ১০৯ কেন্দ্রে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৬ ঘণ্টা, মার্চ ০৬, ২০১৮
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa