ঢাকা, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

কুলাউড়ায় গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, পরিবার বলছে হত্যা

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ১৯, ২০২২
কুলাউড়ায় গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, পরিবার বলছে হত্যা প্রতিকী ছবি

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় শারমিন আক্তার বিউটি নামে এক গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গৃহবধুর পরিবারের দাবি, তাকে হত্যা করা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) সকালে উপজেলার কাদিপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামস্থ স্বামীর বাড়ি থেকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় গৃহবধু বিউটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহবধূর শ্বশুর আব্দুল কাইয়ুম (৬০) ও ননদ জেসীকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

বিউটি গোবিন্দপুর গ্রামের দুবাই প্রবাসী পায়েল আহমেদের স্ত্রী এবং উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শায়েস্তা মিয়ার মেয়ে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৪ বছর আগে উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের উত্তর পল্কি গ্রামের বাসিন্দা ও হাজীপুর ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শায়েস্তা মিয়ার মেয়ে বিউটির সঙ্গে একই উপজেলার কাদিপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের আব্দুল কাইয়ুমের ছেলে পায়েল আহমেদের বিয়ে হয়। তাদের সংসার জীবনে ভিবা ও বাহা নামে ৩ বছর বয়সী যমজ দুই সন্তান রয়েছে।

গৃহবধু বিউটির বাবা শায়েস্তা মিয়া অভিযোগ করে বলেন, ৪ বছর আগে আমার মেয়ের বিয়ে হয়। এরপর থেকে তার ননদেরা প্রায়ই তাকে মারধর করে আসছিলো। এ নিয়ে অনেক বিচার সালিশও হয়েছিল। ঈদের পর মেয়ে আমার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। গত শুক্রবার তার স্বামীর ফোনকল পেয়ে সে স্বামীর বাড়ি চলে যায়।
 
বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) সকাল ৯টায় আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে মেয়ের স্বামীর বাড়ির পক্ষ থেকে খবর দেওয়া হয়। আমরা তাদের বাড়িতে গিয়ে দেখি মেয়ের লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আছে। অথচ মেয়ের পা খাটের ওপর লাগানো অবস্থায় রয়েছে। মেয়ের ননদ জেসী ও কুলফী তাকে হত্যা করে লাশটি ঝুলিয়ে রেখে দরজা বন্ধ করে দেয়। এখন আমার মেয়েকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে।
 
তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় তার মেয়ের দুই ননদ, শ্বশুর ও মেয়ের স্বামীকে অভিযুক্ত করে একটি অভিযোগ থানায় দায়ের করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুছ ছালেক বলেন, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের শ্বশুর ও ননদকে আটক করা হয়েছে। দুপুরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর নিহতের মৃত্যুর মূল কারণ জানা যাবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ০০৫৫ ঘণ্টা, ১৮ আগস্ট, ২০২২
বিবিবি/এসএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa