ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভারত

চতুর্থ দফার ভোটে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৯, ২০১৯
চতুর্থ দফার ভোটে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি আসনে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ছবি: সংগৃহীত

কলকাতা: নির্বাচন কমিশনের রিপোর্ট অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গে বেলা একটা অব্দি ভোট পড়েছে ৪০ শতাংশ। পাশাপাশি বীরভূম জেলার নলহাটির হাবিশপুরে ভোট দেয়াকে নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপিকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। 

সোমবার (২৯ এপ্রিল) সকালে এ ঘটনা ঘটে। বিজেপি সমর্থকদের অভিযোগ, সকালে ভোট দিতে যাওয়ার সময় তাদের বাধা দেয় শাসকদল তৃণমূলের স্থানীয় নেতারা।

ভোটার কার্ড কেড়ে নেয়া হয়। এমনকি মারধরও করা হয়।  

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা কর্তারা। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।  

এদিকে নদিয়া জেলার আলননগরে রোববার (২৮ এপ্রিল) বোমা বিস্ফোরণে তৃণমূলকর্মীর হাত উড়ে যাওয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই ফের উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে।  

ভোটের দিন অর্থাৎ সোমবারও শান্তিপুরের একটি বাড়ির সামনে থেকে বোমা উদ্ধার করা হয়। বোমা উদ্ধার করে নিয়ে যায় শান্তিপুর থানার পুলিশ। এ ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। রয়েছে চাপা উত্তেজনাও।  

তৃতীয় দফায় রাজ্যে ভোটে মুর্শিদাবাদে হিংসার বলি হয়েছেন এক ব্যক্তি। চতুর্থ দফায় তাই নিরাপত্তা ব্যবস্থায় কোনো ফাঁক রাখতে নারাজ নির্বাচন কমিশন। তবে ভোটের শুরুতেই তাজা বোমা উদ্ধারে এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।  

ভোট শুরু হতে না হতেই রাজ্যের পাঁচ জেলার আটটি আসন থেকে নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে জমছে অভিযোগের পাহাড়। সকাল থেকেই আসছে বিক্ষিপ্ত অশান্তির খবর।  

বহরমপুরে শাসক দলের হয়ে ছাপ্পা (জাল) ভোটে মদদ দেয়ার অভিযোগে অপসারণ করা হয়েছে এক প্রিসাইডিং অফিসারকে।  

অপরদিকে রাজনৈতিক সংঘর্ষ ঘিরে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় আসানসোলের জেমুয়া। দুপক্ষের কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। ঘটনায় রিপোর্ট চেয়েছে নির্বাচন কমিশন।

স্থানীয়দের দাবি, রাজ্য পুলিশের উপরে ভরসা নেই। বিক্ষোভের মাঝেই ওই বুথে পৌঁছান তৃণমূলের ব্লক সভাপতি। জড়ো হন সিপিএম-তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকেরা।  

দুইদলের মধ্যে শুরু হয় বচসা। লাঠি-বাঁশ নিয়ে একে অপরের দিকে তেড়ে যান তারা। দু’পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। গোটা ঘটনায় রিপোর্ট চেয়েছে নির্বাচন কমিশন। এছাড়া বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়ের গাড়ি ভাঙচুর করেছে দুস্কৃতিরা। বিজেপির অভিযোগ শাসক দলের বিরুদ্ধে।  
 
সোমবার পশ্চিমবাংলার বহরমপুর, রানাঘাট, বীরভূম, কৃষ্ণনগর, আসানসোল, বর্ধমান-দুর্গাপুর, বোলপুর এবং বর্ধমান-পূর্ব মিলিয়ে আটটি আসনে চলছে ভোটগ্রহণ পর্ব।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্ছিদ্র করতে প্রতিটা কেন্দ্রেই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করেছে নির্বাচন কমিশন। রয়েছে কুইক রেসপন্স টিমও।  

নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, ওই ৮টি কেন্দ্রের প্রায় ৯৮ শতাংশ বুথেই আছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। ভোট চলবে স্থানীয় সময় ৬টা পর্যন্ত।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৯, ২০১৯
ভিএস/এমএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa