ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১৮ মহররম ১৪৪৬

স্বাস্থ্য

এনএইচটিটিআইতে জমকালো ‘ফুড সেফটি ও হাইজিন’ কার্নিভাল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২৭ ঘণ্টা, মার্চ ৭, ২০১৭
এনএইচটিটিআইতে জমকালো ‘ফুড সেফটি ও হাইজিন’ কার্নিভাল কার্নিভালে ১০৪ প্রশিক্ষণার্থী অংশ নিয়েছেন। ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: স্বাস্থ্যসম্মত সুস্বাদু খাবার তৈরি ও এ শিল্পে দক্ষ জনসম্পদ গড়তে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের অধীন ন্যাশনাল হোটেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (এনএইচটিটিআই) দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজন করেছে ‘ফুড সেফটি ও হাইজিন কার্নিভাল’।

বুধবার (৭ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর হোটেল অবকাশের ব্যাংকুয়েট হলে এ কার্নিভালের উদ্বোধন করেন পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড. অপরূপ চৌধুরী। কার্নিভালে এনএইচটিটিআই’র প্রশিক্ষণার্থীরা তাদের তৈরি বহুজাতের খাবার পণ্য প্রদর্শন করেন।

অনুষ্ঠানে পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড. অপরূপ চৌধুরী বলেন, দেশে পাঁচ তারকা হোটেলসহ পর্যটন শিল্পে দক্ষ জনসম্পদের চাহিদা বাড়ছে। স্বাস্থ্যসম্মত খাবার পরিবেশনায় দক্ষতা অর্জন করে দেশে এবং বিদেশে উচ্চ বেতনের চাকরি মিলছে।

তিনি বলেন, সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক হোটেল ট্যুরিজম প্রতিষ্ঠানের কাছে এনএইচটিটিআই’র সুনাম রয়েছে। এখান থেকে দক্ষতা অর্জন করে বহু প্রশিক্ষণার্থী দেশের ফাইভ স্টার হোটেলগুলোতে চাকরি করছেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পর্যটন করপোরেশনের পরিচালক (বাণিজ্যিক) শাহাদাত হোসেন ও পরিচালক (পরিকল্পনা) মো. শহীদুল আলম, প্রবীণ পর্যটন বিশেষজ্ঞ ও `বাংলাদেশ ট্রাভেলার্স’ সম্পাদক শাহাবুদ্দিন আহমেদ। বক্তব্য রাখছেন পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড. অপরূপ চৌধুরী।  বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কমউপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পর্যটন বোর্ডের সদস্য খবির উদ্দিন, বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ফর ট্যুরিজম ডেভেলপমেন্ট (বিএফটিডি) এবং ইনবাউন্ড ট্যুর অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রেজাউল একরাম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এনএইচটিটিআই অধ্যক্ষ পারভেজ আহমেদ চৌধুরী।

কার্নিভালে অংশ নেওয়া ১০৪ প্রশিক্ষণার্থী সচেতনতামূলক হাইজিনক খাবার ও স্যুভেনির প্রদর্শন করেন। পরে এ প্রদর্শনীর উপর ভিত্তি করে প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্য থেকে শ্রেষ্ঠ প্রকল্প, শ্রেষ্ঠ হাইজেনিক খাবার এবং শ্রেষ্ঠ স্যুভেনির প্রদর্শনকারীকে পুরস্কৃত করা হয়।

কার্নিভালের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফুট সেফটি অ্যান্ড হাইজেনিক কোর্সের সমন্বয়ক জাহেদা বেগম। অনুষ্ঠান সহযোগিতায় ছিলো ‘মনিন’।  

দ্বিতীয়বারের মতো কার্নিভাল আয়োজন নিয়ে এনএইচটিটিআই অধ্যক্ষ পারভেজ আহমেদ চৌধুরী বলেন, ঘরে ও ঘরের বাইরে খাবার গ্রহণকারী মানুষকে এ বিষয়ে সচেতন করার পাশাপাশি যারা খাবার প্রস্তুত ও পরিবেশনার সঙ্গে জড়িত থাকেন, তাদের সচেতন করা অতি জরুরি ও অত্যাবশকীয়। এ কার্যক্রমে নীরব বিপ্লব সাধনে পুরাধার দায়িত্ব পালন করে চলেছে এনএইচটিটিআই।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৬ ঘণ্টা, মার্চ ০৭, ২০১৬
এসএ/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।