ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

স্বাস্থ্য

রাঙামাটি মেডিকেলে শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৫
রাঙামাটি মেডিকেলে শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধন

রাঙামাটি: পার্বত্যাঞ্চল দীর্ঘদিন অবহেলিত ছিল। এক সময় এই অঞ্চলের জনগণের ওপর প্রচুর ঝড়-ঝঞ্ঝাট বয়ে গেছে।

কিন্তু শান্তি চুক্তির ফলে এখন এই অঞ্চলে শান্তির সুবাতাস বইছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরাই চুক্তি করেছি। চুক্তি বাস্তবায়ন আমরাই করবো। ইতোমধ্যে চুক্তির বেশিরভাগ বাস্তবায়ন হয়েছে। সামান্য কিছু বাকি রয়েছে। দ্রুত তাও বাস্তবায়ন করা হবে।

তিনি বলেন, নৈসর্গিক সৌন্দর্যের এই অঞ্চলটি অর্থনৈতিক কোনো সুবিধা না থাকলেও এখন এখানকার জনগণ অর্থনৈতিক ক্ষেত্রেও এগিয়ে চলছে।
শনিবার সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের পাঠদান উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন।

উদ্বোধনকালে গণভবনে উপস্থিত ছিলেন- স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি, সেনাপ্রধান জেনারেল ইকবাল করিম ভূঁইয়াসহ মন্ত্রিপরিষদের সচিব ও অন্যান্য কর্মকর্তারা।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মেডিকেল কলেজগুলোতে এবার বেশিরভাগ ছাত্রী ভর্তি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নারী ক্ষমতায়নের যে লক্ষ্য ছিল, তা এর মাধ্যমে পূরণ করতে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা যখনই ক্ষমতায় এসেছে, তখনই তিনি মায়ের মমতায় তৃণমূলের জনগণকে সেবা দিয়েছেন।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টির কারণে পাহাড়ের অনগ্রসর জনগোষ্ঠী শিক্ষা ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রে এগিয়ে চলছে। নেতিবাচক পরিস্থিতির মধ্যেও আজ রাঙামাটিতে মেডিকেল কলেজ উদ্বোধন করা হয়েছে।

মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু বলেন, শান্তি চুক্তির ফলে পাহাড়ে উন্নয়ন হচ্ছে। রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ স্থাপন করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি দ্রুত রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ও উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী সহযোগিতা কামনা করেন।

এসময় রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের কনফারেন্স রুমে উপস্থিত ছিলেন- পার্বত্য সচিব নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. টিপু সুলতান প্রমুখ।

উদ্বোধনকালে রাঙামাটির মেডিকেল কলেজের ৫১ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।