ঢাকা, বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৯ মে ২০২৪, ২০ জিলকদ ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

ফিরে দেখা-২০১৫

ছাড়াল লক্ষ্যমাত্রা, সচল বকেয়া মামলা

রহমত উল্যাহ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৫২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২২, ২০১৫
ছাড়াল লক্ষ্যমাত্রা, সচল বকেয়া মামলা

ঢাকা: ঘটন-অঘটনের মধ্য দিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) পার করেছে ২০১৫ সাল (২০১৫-১৬ অর্থবছরের হিসেবে ডিসেম্বর পর্যন্ত আট মাস)। বিদায়ী বছরে আগের দুই অর্থবছরের (২০১১-১৪) মতোই রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে সংস্থাটি।



ছাড়াল রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা
অর্থনৈতিক বিশ্লেষক, বিভিন্ন সংগঠনের বিশ্লেষণী তথ্যকে থোড়াই কেয়ার করে বিদায়ী বছরের মধ্য দিয়ে পর পর তিন অর্থবছরে (২০১১-১৪) রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে এনবিআর।

২০১৪-১৫ অর্থবছরের রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৪৯ হাজার ৭২০ কোটি টাকা। পরে রাজনৈতিক অস্থিরতায় লক্ষ্যমাত্রা ১৪ হাজার ৬৯২ কোটি টাকা কমিয়ে করা হয় ১ লাখ ৩৫ হাজার ২৮ কোটি টাকা।

এ অর্থবছর সংশোধিত রাজস্ব লক্ষমাত্রা ১ লাখ ৩৫ হাজার ২৮ কোটি টাকার বিপরীতে আদায় হয়েছে ১ লাখ ৩৬ হাজার ৭২৩ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

যা অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ হাজার ৬৯৫ কোটি ৯৮ লাখ টাকা বেশি। বিদায়ী অর্থবছরে রাজস্ব আদায় প্রবৃদ্ধি ১৩ দশমিক ১৬ শতাংশ।

রাজস্ব মামলা সচল
উচ্চ আদালতে কাস্টমস, আয়কর ও ভ্যাটের ৩০ বছরের প্রায় ২৪ হাজার রিট মামলায় ৩১ হাজার কোটি টাকার বকেয়া রাজস্ব রয়েছে।

এর মধ্যে কাস্টমসের ১৭ হাজার ৪৭০ মামলায় বকেয়া রাজস্ব ৪ হাজার ৮২৫ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। আয়করের ৩ হাজার ৮৭৬ মামলায় বকেয়া রাজস্ব ৮ হাজার ১৮২ কোটি ৭০ লাখ টাকা। মূসকের (ভ্যাট) ৩ হাজার ২২৬ মামলায় বকেয়া রাজস্ব ১৭ হাজার ৯৩৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকা।

এ রাজস্ব আদায়ে বোর্ড চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বিচারপতি ও অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ের সহায়তার মাধ্যমে অর্থ আদায়ের যুগান্তরকারী উদ্যোগ নিয়েছেন। এ নিয়ে প্রথমবারের মতো প্রধান বিচারপতি ও বিচারকদের নিয়ে একটি সেমিনারও করেছেন তিনি। একই সঙ্গে মামলা পরিচালনায় উচ্চ আদালতে আলাদা বেঞ্চ গঠন করা হয়েছে।

দুইটি আয়কর মেলা ও ৮৫ জেলায় মেলা
কর সচেতনতা বাড়ানো, করদাতাদের সেবা ও রিটার্ন দাখিলের সুবিধার্থে এনবিআর প্রথমবারের মতো দু’টি আয়কর মেলার আয়োজন করেছে। এর মধ্যে ১৬-২২ সেপ্টেম্বর (সপ্তাহব্যাপী) জাতীয় আয়কর মেলার আয়োজন করে। উপজেলায় করজাল বিস্তারে প্রথমবারের মতো দেশের অর্থনৈতিক সম্ভাবনাময় ৮৫টি উপজেলায় করমেলার আয়োজন করা হয়। মেলায় ২ হাজার ৩৫ কোটি ৩২ লাখ টাকার রাজস্ব আদায়, এক লাখ ৬১ হাজার রিটার্ন জমা ও সেবা গ্রহণ করেছেন ৭ লাখ ৫৭ হাজার ৭৫৪ জন।

করদাতাদের অনুরোধ ও অর্থমন্ত্রীর নির্দেশে প্রথমবারের মতো তিন দিনব্যাপী (১৯-২১ নভেম্বর) শীতকালীন আয়কর মেলার আয়োজন করে এনবিআর। এতে ৬২ কোটি ৭২ লাখ ৫০ হাজার ৩০৬ টাকার আয়কর আদায় হয়েছে। করদাতারা অভূতপূর্ব সাড়া দিয়েছে।

রাজস্ব সংলাপ
‘জনকল্যাণে রাজস্ব’ এ নীতি বাস্তবায়ন ও নতুন এনবিআর গঠনে চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান করদাতা, ব্যবসায়ীসহ সব পেশার মানুষকে নিয়ে ‘রাজস্ব সংলাপ’ শুরু করেছেন।

ব্যবসায়ীসহ সব করদাতার মধ্যে করভীতি দূর করে করজাল বাড়াতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি জেলায় এ সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইতোমধ্যে এফবিসিসিআইসহ বেশ কয়েকটি ব্যবসায়ী সংগঠনের সঙ্গেও এ সংলাপ হয়েছে।

ক্রমান্বয়ে সারাদেশে এ সংলাপ চলবে। ব্যবসায়ীসহ সবাই এ সংলাপে ব্যাপক সাড়া দিয়েছেন।

ঢাকায় ৩০ ও চট্টগ্রামে ৪০তলা কর ভবন
এনবিআরের ঢাকায় ১৭টি কর অঞ্চল ও এনবিআরের মূল অফিসসহ বিশাল বহর থাকলেও সব অফিস পরিচালিত হচ্ছে ভাড়া বাড়িতে। ফলে মাসে বিশাল অঙ্কের করের টাকা ভাড়ায় চলে যায়। আগারগাঁও এনবিআরের নিজস্ব জমি নিয়ে মামলা জটিলতায় কর ভবন নির্মাণ আটকে ছিল।

এ বছর মামলা নিষ্পত্তি হওয়ায় এনবিআর সেখানে ৩০ তলা ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করেছে। একই সঙ্গে চট্টগ্রামের ৪০তলা কর ভবন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, যা হবে দেশের সর্বোচ্চ ভবন।

নতুন ভবনে ২০১৬ সালের আয়কর মেলা
কর সচেতনতা বাড়ানো ও করসেবা গ্রহণে মানুষকে উদ্ধুদ্ধ করতে এনবিআর ২০১০ সাল থেকে অফিসার্স ক্লাব, বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা শহরে আয়কর মেলা করে আসছে। নিজস্ব জায়গা না থাকায় ভাড়া জায়গায় এনবিআর এ মেলা করে। এতে বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ হয়।

এনবিআরের নতুন ভবনের কাজ শেষ হয়ে গেলে আগামী বছরের (২০১৬ সাল) আয়কর মেলা নতুন ভবনে করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

সিআইপি কার্ড
বিদেশিদের দেশে বিনিয়োগে আগ্রহী করতে সিআইপি কার্ড প্রধান করছে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ। আরোও বেশি উৎসাহী করতে কার্ড সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে।

মার্কিন ডলার প্রিমিয়াম বন্ড ও মার্কিন ডলার ইনভেস্টমেন্ট বন্ডে এক মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করায় এ কার্ড প্রদান করে সংস্থাটি। এবার দু’দফায় আটজনকে এ কার্ড প্রদান করা হয়েছে।

শুল্ক, মূসক গোয়েন্দা ও সিআইসি সেলকে শক্তিশালী
রাজস্ব ফাঁকি ঠেকাতে বোর্ড শুল্ক, মূসক গোয়েন্দা ও সিআইসি সেলকে শক্তিশালী করেছে এনবিআর। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতর বিমানবন্দরসহ বিভিন্ন জায়গায় স্বর্ণ ও মিথ্যা ঘোষণায় শত শত কোটি টাকার পণ্য জব্দ ও মামলা করেছে।

এছাড়া দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চট্টগ্রামে ১০৭টি সূর্যমুখী তেলের ড্রাম আটক করে। এতে তরল কোকেন আটক করা হয়। এছাড়া মূসক গোয়েন্দা অধিদফতর হোটেল, রেস্টুরেন্টসহ বড় বড় শপিংমলে অভিযান চালিয়ে মূসক ফাঁকির ভয়াবহ চিত্র তুলে আনে। বড় ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের বিশাল অঙ্কের রাজস্ব ফাঁকি উদঘাটনে এনবিআর নিয়ন্ত্রিত সিআইসি সেলকে (সেন্ট্রাল ইন্টিলিজেন্স সেল) শক্তিশালী করা হয়েছে।

এছাড়া বড় বড় প্রতিষ্ঠানের মূসক ফাঁকি উৎঘাটনে প্রাথমিকভাবে ১১০টি প্রতিষ্ঠানের তদন্ত শুরু করেছে এনবিআর।

রিপোর্ট কার্ড বা আমলনামা
রাজস্ব প্রশাসনে গতিশীলতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আনতে এবং কর্মকর্তাদের কর্মদক্ষতা বাড়াতে প্রথমবারের মতো ‘রিপোর্ট কার্ড বা আমলনামা’ চালু করেছে এনবিআর।
 
কার্ডের কর্মপরিধিতে মূল্যায়ন হবে কর্মকর্তার ‘দক্ষতা’। এর মাধ্যমে পদোন্নতি, ভালো জায়গায় পদায়নসহ পাবেন সৎ কর্মকর্তার স্বীকৃতি। প্রতি মাসে সব কর্মকর্তাকে এ কার্ড জমা দিতে হবে। এ কার্ড চালুর ফলে কর্মকর্তাদের মধ্যে কর্মচঞ্চলতা বেড়ে গেছে।

নভেম্বরে সর্বোচ্চ রাজস্ব আদায়
চলতি অর্থবছরের নভেম্বর মাসে (মাসওয়ারি) সর্বোচ্চ রাজস্ব আদায় করেছে এনবিআর। এ মাসে রাজস্ব প্রবৃদ্ধি ২৩ দশমিক ৩৪ শতাংশ।

নভেম্বরে রাজস্ব আদায় হয়েছে ১২ হাজার ৬৮ কোটি ২ লাখ টাকা। গত অর্থবছর একই সময়ের চেয়ে ২ হাজার ৩৩৮ কোটি ১৫ লাখ টাকা বেশি। এছাড়া গত ৫ মাসে (জুলাই-নভেম্বরে) রাজস্ব প্রবৃদ্ধি ১৪ শতাংশ। যা অন্য অর্থবছরের চেয়েও বেশি।

এছাড়া পাঠ্যসূচিতে কর সচেতনতাসূচি অন্তর্ভুক্তকরণ, অর্থপাচার রোধে পদক্ষেপ গ্রহণ, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও খেলোয়াড়দের মাধ্যমে কর সচেতনতার উদ্যোগ, উপজেলায় কর অফিস স্থাপনসহ বেশ কিছু উদ্যোগ বিদায়ী বছরের আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল।

বাংলাদেশ সময়: ০৮৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২২, ২০১৫
আরইউ/এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।