ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

কলকাতায় বাংলাদেশ উপ হাইকমিশনের দুই কর্মকর্তার বিদায়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৫
কলকাতায় বাংলাদেশ উপ হাইকমিশনের দুই কর্মকর্তার বিদায় ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কলকাতা: সাড়ে পাঁচ বছর কাজ করার পর কলকাতায় বাংলাদেশ উপ হাইকমিশন থেকে বিদায় নিলেন কমার্স বিভাগের প্রথম সেক্রেটারি ড. ওমর ফারুক ও তিন বছরের কিছু বেশি সময় কাজ করার পর বিদায় নিলেন ভিসা অফিসারের দায়িত্বে থাকা তোফাজ্জেল হোসেন।

ড. ওমর ফারুকের স্থলাভিষিক্ত হলেন সাইফুল ইসলাম এবং তোফাজ্জেল হোসেনের জায়গায় দায়িত্ব নিলেন কনস্যুলার মনসুর আহমেদ বিপ্লব।



বিদায়ী সভায় তোফাজ্জেল হোসেন জানান, তিনি যেখানেই থাকুন না কেন কলকাতাকে বারবার তার মনে পড়বে। ভিসা অফিসার হিসেবে কাজ করতে গিয়ে কখনো কখনো তাকে কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। তবে সেগুলি সবকিছুই দেশের স্বার্থের কথা মাথায় রেখে।

কলকাতা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, কলকাতা বইমেলা, গড়িয়াহাট, রবীন্দ্র সদন –নন্দন চত্বর তিনি কোনোদিন ভুলতে পারবেন না।

যদি আবার কোনোদিন কলকাতায় আসার সুযোগ পান তবে আসবেন কিনা- বাংলানিউজের এ প্রশ্নের উত্তরে তোফাজ্জেল হোসেন জানান, সে সুযোগ যদি আবার আসে তিনি অবশ্যই ফিরে আসতে উৎসাহী হবেন।

ড. ওমর ফারুক দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কের কথা বলতে গিয়ে বলেন , বাণিজ্য বিষয়ে বেশ কিছু ভালো কাজ হয়েছে। আগামী দিনে নতুন দায়িত্বপ্রাপ্তরা কাজগুলো আরও এগিয়ে নিয়ে যাবেন।

তিনি জানান,  তার কাজের সময় ১৩ শতাংশ বাণিজ্য বেড়েছে। আগামী দিনে আরও বেশ কিছু নতুন ‘চেক পোস্ট’ তৈরির বিষয়ে আলোচনা এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হাওড়া, পেট্রাপোল, আগরতলা ইত্যাদি।

অন্যদিকে বাংলাদেশের কিছু শিল্প গোষ্ঠী ভারতে সিমেন্ট, খাদ্য পক্রিয়াকরণ প্রভৃতি শিল্পে বিনিয়োগ করতে উৎসাহী বলে জানিয়েছেন ড. ওমর ফারুক।

তিনি আরও জানান, চলতি বছরের মে-জুন মাস থেকে বিষয়গুলি কার্যকর হতে পারে।

কলকাতায় আবার ফিরে আসার ইচ্ছা বিষয়ে তার মত জানতে চাইলে তিনি জানান, এ সম্ভাবনা কম থাকলেও যদি তিনি কোনোদিন সুযো পান অবশ্যই কলকাতায় কাজ করতে চাইবেন।

অনুষ্ঠানে উপ হাইকমিশনার জকি আহাদ বিদায়ী কর্মকর্তাদের শুভেচ্ছা জানান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপ হাইকমিশনের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।