ঢাকা, সোমবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ: লিগ পর্ব শেষে ব্যাটে-বলে সেরা যারা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০২০
বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ: লিগ পর্ব শেষে ব্যাটে-বলে সেরা যারা ব্যাটে-বলে দুই সেরা লিটন দাস ও মোস্তাফিজ/ছবি: বাংলানিউজ

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে শেষ হয়েছে লিগ পর্বের সব ম্যাচ। ডাবল লিগ পর্বে মোট খেলা হয়েছে ২০টি ম্যাচ।

সোমবার (১৪ ডিসেম্বর) থেকে শুরু হবে প্লে- অফের খেলা। এলিমিনেটর ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকার মুখোমুখি হবে ফরচুন বরিশাল। আর প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের প্রতিপক্ষ জেমকন খুলনা।

ডাবল লিগ পর্বে মাঠ মাতিয়েছেন দেশের শীর্ষ সারির ব্যাটসম্যান ও বোলাররা। ব্যাট আর বলের লড়াইটা বেশ ভালোই জমেছিল। প্রত্যাশিতভাবেই ব্যাট হাতে রান বন্যায় ভেসেছেন লিটন দাস, তামিম ইকবাল, নাজমুল হোসেন শান্ত, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিমের মতো পরীক্ষিত ব্যাটসম্যানরা। আবার পারভেজ হোসেন ইমন, আনিসুল হক ইমন, তৌহিদ হৃদয়ের মতো তরুণরাও ভালো খেলেছেন।

বল হাতে অবশ্য দেখা গেছে ভিন্নতা। অক্টোবরে অনুষ্ঠিত বিসিবি প্রেসিডেন্ডস কাপে দেখা গিয়েছিল পেসারদের আধিপত্য। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপেও সেটার ধারাবাহিকতা দেখা গেল। স্পিনারদের চেয়ে পেসাররা ভালো করেছেন। শীর্ষ দশে পেসারদের আধিক্যই দেখা যায়। ছন্দে ফিরেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। শরিফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলামের মতো তরুণ পেসাররাও আলো ছড়িয়েছেন।

দেখে নেওয়া যাক বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে লিগ পর্ব শেষে ব্যাটে-বলে সেরা যারা:

সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যান:

১। লিটন দাস: বিসিবি প্রেসিডন্টস কাপে ফাইনাল ম্যাচ ছাড়া ব্যাটে রান পাননি দেশের অন্যতম সেরা এই ক্ল্যাসিক্যাল ব্যাটসম্যান। তবে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের হয়ে ঠিকই রয়েছেন সেরা ছন্দে। রান সংগ্রাহকের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন এই ডানহাতি। ৭ ম্যাচে ৬১.২ গড়ে লিটনের ব্যাট থেকে এসেছে ৩০৬ রান। তিনটি অর্ধশতকের দেখাও পেয়েছেন।

২। তামিম ইকবাল: ফরচুন বরিশালে হয়ে খেলছেন বাংলাদেশ দলের ওয়ানডে অধিনায়ক। তিনিও বিসিবি প্রেসিডন্টস কাপে ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। তবে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে ঠিকই রানে ফিরেছেন। এই বাঁহাতি ওপেনার ৮ ম্যাচে ৪৩.১৪ গড়ে করেছেন ৩০২ রান। আছে দুটি ফিফটিও।

৩। নাজমুল হোসেন শান্ত: মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাজীর অধিনায়ক শান্ত রয়েছেন তিন নম্বরে। যদিও রাজশাহী ইতিমধ্যে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেছে। তবে ব্যাট হাতে তিনি ছিলেন সফল। ৮ ম্যাচে ৩৭.৬২ গড়ে শান্ত করেছেন ৩০১ রান। টুর্নামেন্টের তিন সেঞ্চুরির একটি এসেছে তার ব্যাট থেকে। টুর্নামেন্ট সেরা ১০৯ রানের ইনিংসও এসেছে তার ব্যাট থেকে। ৫০ বলে সেঞ্চুরি করে দেশের ক্রিকেটে দ্বিতীয় দ্রুততম টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরির রেকর্ডও গড়েছেন তিনি।

৪। সৌম্য সরকার: গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের এই ওপেনার রয়েছেন চার নম্বরে। ৮ ম্যাচে ৩৬.১৪ গড়ে সৌম্যের ব্যাট থেকে এসেছে ২৫৩ রান। শুরুতে ছন্দ হারিয়ে ফেললেও পরে ঠিকই ছন্দ ফিরে পেয়েছেন তিনি। দুটি ফিফটি রয়েছে তার ঝুলিতে।

৫। নাঈম শেখ: বেক্সিমকো ঢাকাr এই ওপেনার রয়েছেন তালিকার পাঁচ নম্বরে। ৮ ম্যাচে করেছেন ২৪৩ রান, গড় ৩০.৩৭। তার ব্যাট থেকে এসেছে একটি সেঞ্চুরি। ১০৫ রান সর্বোচ্চ ইনিংস।

সেরা পাঁচ বোলার:

১। মোস্তাফিজুর রহমান: গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের এই পেসার উইকেট শিকারের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন। বল হাতে দারুণ ছন্দে রয়েছেন এই বাঁহাতি পাসার। ৭ ম্যাচে ৫.৭৪ ইকোনোমি রেটে নিয়েছেন ১৬টি উইকেট। সেরা বোলিং ৫ রান দিয়ে ৪ উইকেট।

২। কামরুল ইসলাম রাব্বি: ফরচুন বরিশালের এই পেসার বেশ দারুণ ফর্মে আছেন। মোস্তাফিজের পরেই তার অবস্থান। আট ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ১৪টি। টুর্নামেন্টের একমাত্র হ্যাটট্রিক তিনিই করেছেন। সেরা বোলিং ২১ রান খরচে ৪ উইকেট।

৩। শহিদুল ইসলাম: বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের সেরা উইকেট শিকারের তালিকায় তিন নম্বরে রয়েছেন এই তরুণ পেসার। ৭ ম্যাচে ১৩ উইকেট নিয়েছেন তিনি। সেরা বোলিং ১৭ রানে ৪ উইকেট।

৪। মুক্তারর আলী: বেক্সিমকো ঢাকার হয়ে খেলছেন ঘরোয়া ক্রিকেটের অভিজ্ঞ এই পেসার। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে নিজেকে নতুন করে চিনিয়েছেন। ৮ ম্যাচে মুক্তারের শিকার ১৩ উইকেট। ৩৭ রানে ৪ উইকেট তার সেরা বোলিং।

৫। রবিউল ইয়াসলাম রবি: শীর্ষ উইকেট শিকারের তালিকায় পাঁচে রয়েছেন বেক্সিমকো ঢাকার এই স্পিনার। পেসারদের রাজ্যে স্পিনারদের মধ্যে ভালো করেছেন তিনি। ৬ ম্যাচ খেলে তুলে নিয়েছেন ১২ উইকেট। টুর্নামেন্টের সেরা বোলিংটা তার কাছ থেকেই এসেছে। ২৭ রানে ৫ উইকেট তার সেরা বোলিং।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০২০
আরএআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।