ঢাকা, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

জলবায়ু ও পরিবেশ

রাজশাহীতে তাপমাত্রা বাড়লেও কমেনি শীত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০২১
রাজশাহীতে তাপমাত্রা বাড়লেও কমেনি শীত

রাজশাহী: রাজশাহীতে সোমবার (২০ ডিসেম্বর) সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) সেই তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

এক লাফে ২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেড়েছে। তবে শীত কমেনি একটুও। দিনভর বয়ে চলেছে ঠাণ্ডা বাতাস। দুপুরে রোদের সামান্য তেজ থাকলেও সন্ধ্যায় শীতের তীব্রতা বাড়ে দ্বিগুণ।

তাই সন্ধ্যার পর থেকে ফুটপাতে থাকা ছিন্নমূল মানুষদের খড়কুটো জ্বালিয়ে শীতার্ত শরীরে আগুনের উত্তাপ দেওয়ার চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

সাধারণত ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নামলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলা হয়। আজ তাপমাত্রা বাড়ায় শৈত্যপ্রবাহ নেই। কিন্তু শীতের দাপট রয়েছে আগের মতোই। এতে সাধারণ জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। শীতের তীব্রতার কারণে সন্ধ্যার পরপরই সড়কে যানবাহন চলাচল কমে এসেছে। প্রধান প্রধান সড়কে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেলেও শহরের সংযোগ সড়কগুলো অনেকটা ফাঁকা হয়ে পড়েছে।

হঠাৎ করে ঠাণ্ডা বাড়ায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে বেড়েছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা। এরমধ্যে কোল্ড ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, হৃদরোগ, অ্যাজমাজনিত শ্বাসকষ্ট ও জ্বর-সর্দি-কাশি রোগীর সংখ্যাই বেশি।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, শীত বাড়ায় রোগীও কিছুটা বেড়েছে। তবে শীতজনিত রোগীর জন্য আগাম ব্যবস্থাপনা থাকায় চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। প্রতিদিন হাসপাতালের আউটডোরে ও ইনডোরে আসা পর্যাপ্ত সংখ্যক রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবহাওয়াবিদ কামাল উদ্দিন বলেন, এ সময় তাপমাত্রার ওঠানামা খুবই স্বাভাবিক। তবে আরও দুদিন এ অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকেই রোদের দেখা মেলে। এ কারণে তাপমাত্রা কিছুটা বেড়েছে। তবে আবারও তাপমাত্রা নেমে যেতে পারে।

আজ সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৫ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আদ্রতা ছিল সকাল ৬টায় ৭৩ শতাংশ এবং সন্ধ্যা ৬টায় ৪৯ শতাংশ। তাই মৃদু শৈত্যপ্রবাহ কেটে গেলেও আজ তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে রাজশাহীতে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, তাপমাত্রা কমে ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামতে পারে। আর এ অবস্থা থাকতে পারে দুদিন। ফলে উত্তরাঞ্চলে মৌসুমের প্রথম মৃদু শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে।

এছাড়া আবহাওয়া অধিদফতরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ডিসেম্বর মাসে দেশের দক্ষিণ ও উত্তরপূর্বাঞ্চলে স্বাভাবিক অপেক্ষা বেশি এবং অবশিষ্টাংশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হতে পারে। এ মাসে বঙ্গোপসাগরে এক থেকে দুটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে, যার মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। তবে এটি বাংলাদেশ উপকূলে আসার সম্ভাবনা কম।

দিন ও রাতের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে কমতে থাকবে, গড় তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকতে পারে। এছাড়া ডিসেম্বর মাসের শেষার্ধে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এক থেকে দুটি মৃদু অর্থাৎ ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস অথবা মাঝারি অর্থাৎ ৮ থেকে ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

বাংলাদেশ সময়: ২০২২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০২১
এসএস/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa