ঢাকা, রবিবার, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

লড়াই সংগ্রামে জনগণ বিজয়ী হবে: মির্জা ফখরুল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০২ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২২
লড়াই সংগ্রামে জনগণ বিজয়ী হবে: মির্জা ফখরুল ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য জনগণ যে লড়াই-সংগ্রাম করছে তাতে তারা অবশ্যই জয়ী হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শুক্রবার (১২ আগস্ট) সকালে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে রাজধানীর বনানীতে তার কবরে শ্রদ্ধা জানানো শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

রাজপথে বিএনপিকে মোকাবিলা করা হবে, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ওটা তাদের পুরোনো কথা। বারবার তারা এসব কথা বলেছেন এবং পরাজিত হয়েছেন। এবারও দেশকে তাদের (আওয়ামী লীগ) হাত থেকে মুক্ত করবার জন্য যে সংগ্রাম চলছে তাতে জনগণ অবশ্যই জয়ী হবে।

তিনি বলেন, আজকে আমরা জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়ার চোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে তার কবর জিয়ারত করেছি এবং পরম করুনাময় আল্লাহর কাছে তার রুহের মাগফিরাত কামনা করেছি। আল্লাহ তাকে যেন বেহেস্তে জায়গা দেন। তার পরিবার পরিজন বিশেষ করে তার মা খালেদা জিয়াকে এই শোক সহ্য করার ক্ষমতা আরও বাড়িয়ে দেন, সেই দোয়া করেছি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আরাফাত রহমান কোকো একজন ক্রীড়ামোদি, ক্রিড়া সংগঠক ছিলেন। তিনি রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না। তিনি অতি অল্প সময়ের মধ্যে ক্রিকেটের উন্নয়ন-অগ্রগতির ভিত্তি স্থাপন করেছিলেন। শুধু ক্রিকেট নয়, তিনি ক্রীড়ার সব প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য চেষ্টা করেছেন। আমাদের এখানে যারা আছেন, তারা সবাই জানেন আরাফাত রহমান কোকো একজন নিরহঙ্কারী মানুষ ছিলেন। তিনি খেলাধুলাকে ভালোবাসতেন। তাকেও এই সরকার নির্মম নির্যাতনের মধ্যে দিয়ে হত্যা করেছে বলে আমি মনে করি।

তিনি বলেন, বর্তমান বিনাভোটের এই যে সরকার, যারা জনগণের ওপরে নির্যাতনের স্টিম রোলার চালাচ্ছে; দেশনেত্রীকে বেআইনি ভাবে আটক করে রেখেছে। আমাদের নেতা তারেক রহমান যিনি আগামী দিনে আমাদের তরুণ প্রজন্মকে নেতৃত্ব দেবেন, তাকে একই ভাবে মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্বাসিত করে রাখা হয়েছে। আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা রয়েছে। এমনকি আরাফাত রহমান কোকোর বিরুদ্ধেও তারা মিথ্যা মামলা দিয়েছিল। আমরা মনে করি এই সরকার যতদিন ক্ষমতায় থাকবে, এই দেশের মানুষের সমস্যার কোনো সমাধান হবে না। জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে, বিদ্যুতের লোড শেডিং, পানির দাম বেড়েছে, তেল-চাল-ডালের দাম বেড়েছে। সরকার রাষ্ট্রপরিচালনায় সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের দুর্নীতি আকাশচুম্বী। আমরা আরাফাত রহমান কোকোর শোককে শক্তিতে রুপান্তর করে ভয়াবহ এই দানবীয় সরকারকে সরিয়ে সত্যিকার অর্থে একটা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই। আমরা দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করব, একই সঙ্গে আমাদের নেতা তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনব। আমাদের অগণিত নেতাকর্মী যাদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে, তাদের মামলা প্রত্যাহার করে দেশে একটা সুস্থ সমাজ এবং সুস্থ ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করব- এই শপথ আমরা নিয়েছি।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান, দক্ষণের আবদুস সালাম, বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, উত্তরের সদস্য সচিব আমিনুল হক, বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, যুবদল নেতা সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, মোনায়েম মুন্না, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১০৫৯ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২২
এমএইচ/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa