ঢাকা, শনিবার, ৪ বৈশাখ ১৪২৮, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৪ রমজান ১৪৪২

রাজনীতি

ঘাত প্রতিঘাতের পরও ছাত্রলীগ জ্বলে ওঠে: মেয়র লিটন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১
ঘাত প্রতিঘাতের পরও ছাত্রলীগ জ্বলে ওঠে: মেয়র লিটন

রাজশাহী: ‘সরকারবিরোধী আন্দোলনের নামে দেশে আগুন সন্ত্রাস শুরু হয়েছিল। রাতের অন্ধকারে ওই জামায়াত-শিবির ও বিএনপির দোসররা রাস্তায় বাস-ট্রাক পুড়িয়ে ফেলেছে।

তাদের আগুনে চালক মারা গেছেন; সাধারণ মানুষ মরেছে। তারা রাস্তায় গাছ ফেলে নাশকতা করেছে সেই সময় এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল। তারা রাজনৈতিকভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছে। আমি ছাত্রলীগ করতে পারিনি তবে আমি ছাত্রলীগের ইতিহাস জানি। আর যারা ইতিহাস জানে তারা কখনই ছাত্রলীগকে ছোট করতে পারে না। ’

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগর সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য রাজশাহী সিটি করপোরেশনে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন।

সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এ সময় ছাত্রলীগের অতীত ইতিহাস তুলে ধরে বলেন, ‘ছাত্রলীগের ১১ দফা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। ৭১ সালে ছাত্রলীগের যে নেতৃত্ব তৈরি করেছিলো, মুক্তিবাহিনী, মুক্তিফোজ তৈরি করে যে ভূমিকা পালন করেছে তা প্রশংসনীয় ও অতুলনীয়। এরপর জিয়া কুচক্রী মহল করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে। বিএনপি জামায়াত এখনও সেই ষড়যন্ত্র করছে। ছাত্রলীগ এসব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে এগিয়ে চলেছে। ছাত্রলীগকে যতবার আঘাত করা হয় ততবারই জ্বলে উঠে।

খায়রুজ্জামান লিটন উল্লেখ করে বলেন, রাজশাহীতে আমি দুই বার মেয়র নির্বাচিত হয়েছি। প্রতিবারই ছাত্রলীগ পাড়া-মহাল্লায় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে ভোট চেয়েছি। ছাত্রলীগ গুণ্ডা-মাস্তানমুক্ত। এজন্য ছাত্রলীগের প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা ও ভালোবাসা বাড়ছে। তাই ছাত্রলীগে সঠিক নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হবেন ভদ্র।  

তবে ঢাকায় গিয়ে রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে তার বক্তব্যে জানান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। বুধবার মহানগর ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্যকালে তিনি এই ঘোষণা দেন।

লেখক ভট্টাচার্য আরও বলেন, রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই পদে বেশ কয়েকজন প্রত্যাশী রয়েছেন। যারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে ছাত্রলীগের পতাকাকে উড্ডায়ন করে ধরে রাখতে পারবে, যারা ক্লিন ইমেজের সর্বোপরি যারা প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করবে আমরা তাদের হাতেই রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের দায়িত্ব অর্পণ করবো।

রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের ১২তম সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্ণা, ছাত্রলীগের গণশিক্ষা সম্পাদক আব্দুল্লাহ হীল বারী, নগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শফিকুজ্জামান শফিক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মীর তৌহিদুর রহমান কিটু।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ঘোষ। সঞ্চালনা করেন মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজিব।

এর আগে ২০১৪ সালে রকি কুমার ঘোষকে সভাপতি ও মাহমুদ হাসান রাজিবকে সাধারণ সম্পাদক করে মোট ১৬১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১
এসএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa