bangla news

ঝালকাঠি জেলা আ’লীগ সভাপতি শাহ আলম, সা. সম্পাদক পনির

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-১২ ৬:৫২:৫৩ পিএম
ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে নেতাকর্মীরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে নেতাকর্মীরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঝালকাঠি: নেতাকর্মীদের ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি সরদার মোহাম্মদ শাহ আলমকে আবারও সভাপতি ও খান সাইফুল্লাহ পনিরকে আবারও সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সকালে ঝালকাঠি পৌর শহরের শিশুপার্ক এলাকায় জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ পরিবারে যারা ভাঙন সৃষ্টি করতে চায় তাদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। তাদের শিক্ষা দেওয়া দরকার। শিক্ষার মাধ্যমে তারা সংশোধন হলে, তাদের দলের পদ-পদবী দেওয়ার ব্যাপারে চিন্তা করা হবে। যারা নৌকায় চড়ে বিজয় লাভ করে আরেকজনের নৌকা ডুবায়, তাদের আর কোনোদিন নৌকায় স্থান দেওয়া হবে না।

আমির হোসেন আমু বলেন, স্বাধীনতাবিরোধীরা এখনো ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে, তাদের সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে এগিয়ে যেতে হবে। বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেল যখন বলা হয়, তখন অনেকেই বলেন এটা আওয়ামী লীগের কথা। কিন্তু না, এটা এখন বিশ্ববাসীর মুখেই শোনা যাচ্ছে। অন্য দেশের রাষ্ট্রনায়করা জানতে চান শেখ হাসিনার কাছে কি যাদুর কাঠি রয়েছে, যে এতো অল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হয়েছে। শুধু উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠাই নয়, শেখ হাসিনা এখন বিশ্বের অন্যতম সৎ রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য গোলাম রব্বানি চিনু।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার মো. শাহ আলমের সভাপতিত্বে সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির, সাংগঠনিক সম্পাদক তরুণ কর্মকারসহ দলীয় নেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
এমএস/এফএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   আওয়ামী লীগ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-12 18:52:53