ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৪ মে ২০১৯
bangla news

মকালু পর্বতে রহস্যময় ইয়েতির পায়ের ছাপ!

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-৩০ ২:১৭:৫৯ পিএম
বড় বড় পায়ের ছাপগুলি ইয়েতির বলে ধারণা করা হচ্ছে

বড় বড় পায়ের ছাপগুলি ইয়েতির বলে ধারণা করা হচ্ছে

ঢাকা: ইয়েতি রহস্য আজও পৃথিবীব্যাপী অমীমাংসিত। বিশেষ করে হিমালয়ান অঞ্চলে রহস্যময় এ কল্পিত প্রাণীটি নিয়ে রয়েছে নানান কিংবদন্তি। পর্বতারোহীরা বিগত কয়েকশ বছর ধরে বিভিন্ন সময় এই তুষারমানব দেখেছেন বলে বর্ণনা করেছেন তাদের লেখায়।

সত্যিই ইয়েতি বলে কিছু আছে কিনা তা নিয়ে এই বিজ্ঞানের যুগেও চলছে যথেষ্ট আলোচনা। তবে সব জল্পনা-কল্পনা সম্প্রতি উসকে দিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর একটি টুইট। তারা এমন কিছু ছবি শেয়ার করেছে, যা দেখে সবার চক্ষু চড়ক গাছ হয়ে যেতে পারে।  

টুইটে তারা তিনটি ছবি পোস্ট করেছে, ছবিতে তারা উল্লেখ করেছে ৩২X১৫ ইঞ্চির একটি পায়ের ছাপ দেখতে পেয়েছে বরফে। আর তাদের দাবি, ছাপটি হতে পারে ইয়েতির। 

ভারতীয় সেনাবাহিনীর টুইটছবিতে দেখা যাচ্ছে বড় বড় পায়ের ছাপের লম্বা রেখা চলে গেছে বরফ চিরে। তবে সেটা একপেয়ে ছাপ বলেই বেশি মনে হচ্ছে। দুই পা ফেলার যে ছাপ সেটি একটু ভিন্ন হয়।

নেপাল সীমান্তে ভারতীয় সেনাদের যে ক্যাম্প রয়েছে সেখানে এই পায়ের ছাপ দেখেছে বলে দাবি তাদের। একই সঙ্গে তারা বলেছেন, তুষারমানবকে মকালু-বারু ন্যাশনাল পার্কের কাছে দেখা গেছে। এই পার্কের উচ্চতা প্রায় ১৩ হাজার ফুট।

ইয়েতি শব্দের অর্থ পাথুরে ভাল্লুক। কথিত আছে, এরা নাকি মানুষও খায়। দেখতে লোমশ বড় ভাল্লুক বা গরিলার মতো। ইতিহাসখ্যাত অভিযাত্রী হাডসনসহ অনেকের লেখায় মিলেছে ইয়েতি বা এ জাতীয় কোনো প্রাণীর অস্তিত্ব।

বেশ কয়েক বছর আগে লাদাখের কিছু বৌদ্ধ ভিক্ষুক দাবি করেছিলেন তারা হিমমানব বা 'ইয়েতি' দেখেছেন। অথচ বিজ্ঞানীরা মনে করেন ইয়েতি বলে আদতে কিছু নেই। তাদের মতে পার্বত্য এলাকায় কিছু ভাল্লুক আছে, যাদের পায়ের ছাপ এটি। 

সে যাইহোক, ভারতীয় সেনাদের এই টুইটের পর সারা পৃথিবী আবার ইয়েতি নিয়ে ভাবতে বসেছে নতুন করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১০ ঘণ্টা, এপ্রিল ৩০, ২০১৯
এএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

অফবিট বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2019-04-30 14:17:59