ঢাকা, শনিবার, ১৬ আশ্বিন ১৪২৯, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

কলেজছাত্র হত্যার ঘটনায় ৮ দাখিল পরীক্ষার্থী গ্রেফতার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২
কলেজছাত্র হত্যার ঘটনায় ৮ দাখিল পরীক্ষার্থী গ্রেফতার

কুমিল্লা: কুমিল্লা তিতাস উপজেলার মজিদপুর ইউনিয়নের চর মোহনপুর গ্রামের মো. সিয়াম (১৭) নামে এক কলেজছাত্রকে হত্যার ঘটনায় আটজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে নিহতের বাবা হেলাল উদ্দিন সরকার বাদী হয়ে আটজনের নাম উল্লেখ করে তিতাস থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এতে অভিযুক্ত সবাই ২০২২ সালের দাখিল পরীক্ষার্থী। তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুধীন চন্দ্র দাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত সিয়াম তিতাস উপজেলার মজিদপুর ইউনিয়নের চর মোহনপুর গ্রামের হেলাল উদ্দিন সরকারের ছেলে। সে মুন্সীগঞ্জ টেকনিক্যাল কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিল।

গ্রেফতাররা হলেন, মেঘনা উপজেলার ব্রাহ্মণচর নোয়াগাঁও গ্রামের জয় মিয়ার ছেলে সাকিব হোসেন (১৯), নাজির হোসেনের ছেলে নাজমুল হাসান (১৯), জোনায়েদ ইসলাম শুভ (১৭), শফিক মিয়ার ছেলে সাইমুন মিয়া (১৯), আওলাদ হোসেনের ছেলে মাসুম বিল্লাহ রনি (১৯), বালুচর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে ওমর ফারুক (১৯), আবুল কাশেমের ছেলে জুনায়েদ আহমেদ সৌরভ (১৯) ও করিমাবাদ গ্রামের হেলালের ছেলে মুকুল আহমেদ রাব্বি (১৭)।

তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত আটজনকে গ্রেফতার করে শুক্রবার কুমিল্লা আদালতে পাঠানো হয়। এছারা নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতার নাজমুল হোসেন তিতাসের পার্শ্ববর্তী মেঘনা উপজেলার বাসিন্দা এবং ওই এলাকার ব্রাহ্মণচর সিনিয়র আলিম মাদরাসার শিক্ষার্থী। তার সঙ্গে নিহত সিয়ামের চাচাতো বোনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই কিশোরীও ব্রাহ্মণচর মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। বেশ কিছুদিন ধরে তাদের সম্পর্ক চলে আসছিল। দাখিল পরীক্ষা শুরুর কয়েক দিন আগে নাজমুল ও তার বন্ধুরা ওই কিশোরীর এলাকায় ঘুরতে যায়। এ সময় সিয়াম বিষয়টি জানতে পেরে নাজমুল ও তার বন্ধুদের ওই এলাকায় যেতে নিষেধ করেন।

সেখানে বোনের দিকে চোখ না দেওয়ার কথা বলে তাদের এলাকা থেকে বের হয়ে যেতে বলে সিয়াম। এতে কয়েকদিন ধরেই ক্ষুব্ধ নাজমুল ও তার বন্ধুরা। পরীক্ষার আগে নাজমুল ও তার সাত বন্ধু পরীক্ষার কেন্দ্রের পাশে থাকার জন্য তিতাসের গাজীপুর আজিজিয়া সিনিয়র দাখিল মাদ্রাসার পাশে সাময়িক সময়ের জন্য একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নেন।

গত বৃহস্পতিবার সিয়াম তার এক চাচাতো ভাইকে নিয়ে পরীক্ষার কেন্দ্রে যায়। নাজমুল ও তার সাত বন্ধু পরীক্ষা শেষে বের হয়ে সিয়ামকে দেখেতে পেলে তাকে ডেকে স্থানীয় একটি মাঠ সংলগ্ন চা দোকানে নিয়ে যায়। সেখানে বেশ কিছুক্ষণ তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা চলে। পরে এক পর্যায়ে সিয়াম নাজমুলের গালে চড় দিলে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় সাত বন্ধু মিলে সিয়ামকে এলোপাতাড়ি মারতে থাকে। এর মধ্যেই নাজমুলের বন্ধু সাকিব ভাড়া বাসায় গিয়ে চাকু নিয়ে আসে। এর পর অন্যরা সিয়ামকে ধরে রাখলে একজন তার তলপেটে ছুরিকাঘাত করে। সঙ্গে সঙ্গে সিয়াম মাটিতে লুটিয়ে পড়লে নাজমুল, সাকিব ও তার বন্ধুরা দৌড়ে পালিয়ে যান।

বাংলাদেশ সময়: ২০২০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২
এফআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa