ঢাকা, বুধবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

জাতীয়

ব্যানার ছাড়াই সালথায় প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের অনুষ্ঠান 

 ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৮ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০২২
ব্যানার ছাড়াই সালথায় প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের অনুষ্ঠান  ব্যানার ছাড়াই সালথায় প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের অনুষ্ঠান 

ফরিদপুর: ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় দায়সারাভাবে পালন করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। স্বদেশ প্রত্যাবর্তন অনুষ্ঠানে ছিলনা কোনো প্রকার ব্যানার, এমনকি তৃণমূলের অনেক নেতা-কর্মীদের দাওয়াত দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ একাধিক আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানকে ঘিরে ছিলনা তেমন কোনো প্রচার প্রচারণা। এতে তৃণমূলের অনেক নেতা-কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে; বইছে সমালোচনার ঝড়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা বলেন,  ব্যানার ছাড়া কিভাবে প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করলেন তা বুঝে আসছে না। এছাড়া তৃণমূলের অনেক নেতাকর্মীদের অনুষ্ঠানে দাওয়াত দেওয়া হয়নি। অনেকটা দায়সারা স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করা হয়েছে।  

জানা যায়, মঙ্গলবার (১৭ মে) সকাল ১০ টায় সালথা উপজেলা পরিষদ হলরুমে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান ফকির মিয়া, উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ওয়াদুদ মাতুব্বর, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. ওয়াহিদুজ্জামান, নারী ভাইস চেয়ারম্যান রুপা বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মজিবুল হক, সালথা উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি মো. সেলিম মোল্যা, গট্টি ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান লাবলু, জেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য শওকত হোসেন মুকুল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রাকিবুল হাসান জুয়েলসহ আরো অনেকে।

এ ব্যাপারে সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান ফকির মিয়া ব্যানার না থাকার সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে বলেন,  বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলই ছিল আমাদের মূল উদ্দেশ্য। সেখানে ব্যানারটা মূখ্য বিষয় না। আমরা দোয়া করেছি, আলোচনা সভা ও মিষ্টি বিতরণ করেছি এটাই মূল বিষয়বস্তু।  

 সালথা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, আমরা যার কাছে ব্যানার বানাতে দিয়েছিলাম, সে ওইদিন অসুস্থ ছিলেন। তাই, যথাসময়ে সেদিন ব্যানারটি টাঙাতে পারিনি। তবে, আমরা আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছি। সেখানে সবাইকে দাওয়াত করা হয়েছে। সব নেতাকর্মী উপস্থিতও ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৭ ঘণ্টা, ১৮ মে, ২০২২
ইআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa