ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

মধ্যরাতে ধানক্ষেতে মিললো ফুটফুটে নবজাতক!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩১০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১
মধ্যরাতে ধানক্ষেতে মিললো ফুটফুটে নবজাতক!

পঞ্চগড়: ঘড়ির কাটায় রাত তিনটা, হঠাৎ ধানক্ষেত থেকে নবজাতকের কান্নার আওয়াজ! ভূতের কাণ্ড ভেবে চিন্তিত নারী। সাহস করে এগিয়ে গিয়ে দেখতে পান ফুটফুটে একটি নবজাতক! এরপর পার্শ্ববর্তী আরেক নারীকে ডেকে তার সহযোগিতায় ওই নবজাতকটিকে উদ্ধার করে বাড়িতে নেওয়া হয়।

এ ঘটনায় পুরো এলাকায় চাঞ্চল্য পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

ঘটনাটি পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ময়দানদিঘী ইউনিয়নের আওকারীপাড়ার। স্থানীয়দের মাধ্যমে উদ্ধার হওয়া নবজাতক এখন জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের অধীনে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।  

এর আগে গত বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাত তিনটায় উপজেলাধীন ময়দানদিঘী ইউনিয়নের আওকারী পাড়া এলাকা থেকে ওই নবজাতককে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, আওকারীপাড়া এলাকায় বুধবার রাতে একটি ধানক্ষেত থেকে হঠাৎ করে এক শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পায় স্থানীয়রা। পরে কান্নার আওয়াজ শুনে স্থানীয় কয়েকজন সেই ধানক্ষেত থেকে সদ্য প্রস্রবকৃত ওই নবজাতকে দেখতে পায়। পরে থানায় খবর দেয়৷ এ সময় স্থানীয়রা ভয়ে নবজাতকটিকে উদ্ধার করার সাহস না পেলেও ওই এলাকার নাসিমা বেগম নামে এক নারী নবজাতককে উদ্ধার করে তার কোলো নিয়ে বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে থানা পুলিশ, উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর শিশুটিকে বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।  

শিশুটিকে উদ্ধারকারী নাসিমা বেগম বাংলানিউজকে বলেন, হঠাৎ করে আমাদের এলাকার ধানক্ষেত শিশুর আওয়াজ শোনা যাচ্ছে এমন খবর দেয় আমার প্রতিবেশী এক নারী৷ পরে আমরা স্থানীয়রা সবাই ধানক্ষেতে গিয়ে দেখি একটি ছোট্ট শিশু কান্না করছে। পরে দেখার পর অনেকে শিশুটিকে কোলে নেওয়ার সাহস না পাওয়ায় আমি শিশুটিকে আমার কোলে তুলে বাড়িতে নিয়ে যাই। এখন শিশুটিকে নিয়ে হাসপাতালে আমিও রয়েছি। তবে, প্রশাসন যদি শিশুটিকে আমাকে দেয় তাহলে আমি তাকে মায়ের যত্ন দিয়ে বড় করবো।  

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট (শিশু বিশেষজ্ঞ) ডা. মনোয়ারুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, শিশুটির শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।  আমরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দিয়ে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছি৷ তবে শিশুটির শারীরিক গঠন এখন ঠিক হয়নি, কিছুটা দুর্বলতা রয়েছে।  

এ বিষয়ে বোদা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা  (ইউএনও) সোলেমান আলী বাংলানিউজকে বলেন, উদ্ধার হওয়া শিশুটি জেলা সমাজসেবার মাধ্যেমে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শিশুটি দায়িত্ব কে নেবে বা কাকে দেওয়া হবে এ বিষয়ে পরবর্তী আলোচনা সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৩০৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa