ঢাকা, সোমবার, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৭ মে ২০২১, ০৪ শাওয়াল ১৪৪২

জাতীয়

বাঘায় ইমাম নিয়োগ নিয়ে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ৫

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৮ ঘণ্টা, মে ২৭, ২০২০
বাঘায় ইমাম নিয়োগ নিয়ে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ ৫

রাজশাহী: রাজশাহীর বাঘা উপজেলার কড়ালি নওশেরা গ্রামের মসজিদে ইমাম নিয়োগ নিয়ে বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে পাঁচজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। 

বুধবার (২৭ মে) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। পরে বাঘা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

 

গুলিবিদ্ধ পাঁচজনের মধ্যে তিনজনকে উদ্ধার করে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। অপর দু’জনের নামে আগের একটি মামলা থাকায় তারা চিকিৎসার জন্য কোথাও ভর্তি না হয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে তারা আত্মগোপনে থেকে কোথাও চিকিৎসা নিচ্ছেন।

রাজশাহীর বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, আহত তিনজনকে এরই মধ্যে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। আহতরা হলেন- বাঘা উপজেলার কড়ালি নওশেরা গ্রামের লালু মন্ডলের ছেলে উজ্জ্বল (৩২), সালাম মন্ডলের ছেলে শাকিল (১৭) ও শুকটা মন্ডলের ছেলে আরিফ (২২)।

ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ঈদুল ফিতরের দিন একজন নতুন ইমাম নিয়োগের দাবি তোলে একটি পক্ষ। অন্য পক্ষ বাধা দেয়। এছাড়া ওইদিন মসজিদের ভেতরে ও বাইরে নামাজ নিয়েও গ্রামের আব্দুল গণি মন্ডল ও মিলনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। নির্দেশনা মেনে গণি মন্ডল মসজিদের ভেতরে নামাজ পড়ানোর কথা বলেন। পক্ষান্তরে মিলন বলেন মসজিদের বাইরে নামাজ পড়াতে। এর জের ধরে আজ আবারও দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত আসলাম ও ফারদেশ নামে দু’জনকে এরইমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। গুলিবিদ্ধ অন্য দু’জনের বিরুদ্ধে আগের মামলা থাকায় তারা আত্মগোপন করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।  

এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি জানান, ওই ঘটনা একটি সূত্র মাত্র। মূলত কুষ্টিয়া ও বাঘার সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় কড়ালি নওশেরা গ্রামের ফেনসিডিল ব্যবসা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা চলছিল। আজ এ ঘটনার সূত্র ধরেই উভয়পক্ষের মধ্যে আগের বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এদিকে, রাজশাহীর বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. নিপা বেগম জানান, সংঘর্ষের সময় উজ্জ্বল পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। গুলির আঘাতে শাকিলের কপাল ও হাত এবং আরিফের পিঠে রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাদের শরীরে গুলির আঘাতের চিহ্ন দেখে এয়ারগানের গুলি বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এক্স-রে করে গুলির ধরন সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

এজন্য প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান ডা. নিপা বেগম।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৫ ঘণ্টা, মে ২৭, ২০২০
এসএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa