bangla news

মশা কানের কাছে সংগীত চর্চা করছে, মেয়রকে প্রধানমন্ত্রী

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৩-৩১ ১:২২:০৪ পিএম
৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং

৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং

ঢাকা: মশার প্রার্দুভাব নিয়ে ঢাকার মেয়রদের সতর্ক করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘কালকে যখন ঘুমাতে গেলাম তখন মাঝে মধ্যেই মশা সংগীত চর্চা করছে। মশার গান শুনলাম। গুণগুণ করে কানের কাছে বেশ গান গাচ্ছিল।’

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলমান কার্যক্রম সমন্বয়ের লক্ষ্যে মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সে গণভবনের সঙ্গে সংযুক্ত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন আওতাভুক্ত এলাকা। 

মেয়র আতিকুল ইসলামকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের কিন্তু আরও সতর্ক থাকবে হবে, যেহেতু মেয়র সাহেব আছেন আমি সেখানে বলছি সেটা হলো- আমাদের কিন্তু একটু, কালকে যখন ঘুমাতে গেলাম তখন মাঝে মধ্যেই মশা সংগীত চর্চা করছে। মশার গান শুনলাম। গুণগুণ করে কানের কাছে বেশ গান গাচ্ছিল।’

‘অর্থাৎ মশার প্রার্দুভাব কিন্তু আস্তে আস্তে শুরু হবে। আসবে ডেঙ্গু। এ ব্যাপারে আমাদের এখন থেকে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হবে।’

মশা নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচিত প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে বলবো এ মশার হাত থেকে দেশের মানুষকে বাঁচানোর জন্য এখন থেকে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে।’

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির সঙ্গে ডেঙ্গু যুক্ত হলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে সতর্ক করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘করোনার সঙ্গে যদি মশা যোগ হয় বা ডেঙ্গু আসে, সেটা আমাদের জন্য আরও মারাত্মক হবে।’

মশা নিধণে সংশ্লিষ্টদের তৎপর হওয়ার নির্দেশের পাশাপাশি ব্যক্তি পর্যায়ে মশারি খাটানো, বাড়িঘর ও আশপাশে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, পানি বা জলাবদ্ধতা সৃষ্টি না হয়, মশার প্রজনন ক্ষেত্র যাতে না থাকে সেদিকে সবার বিশেষভাবে দৃষ্টি দেওয়ার অনুরোধ জানান প্রধানমন্ত্রী।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী চলমান কার্যক্রম সমন্বয়ের লক্ষ্যে আয়োজিত এ ভিডিও কনফারেন্সে সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব এবং সচিবরা ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন।

ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে গণভবনে সংযুক্ত ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

গণভবনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া প্রমুখ।

আটটি বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় ও ৬৪টি জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এ ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন।

জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত ছিলেন এর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

ভিডিও কনফারেন্স সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৮ ঘণ্টা, মার্চ ৩১, ২০২০, আপডেট: ১৬৫৮ ঘণ্টা
এমইউএম/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-03-31 13:22:04