bangla news

বগুড়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আহত সন্ত্রাসী রনির মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৯ ৫:১৬:৫৭ এএম
 আব্দুল্লাহ আল জোনায়েদ ওরফে বিক্লাশ রনি

আব্দুল্লাহ আল জোনায়েদ ওরফে বিক্লাশ রনি

বগুড়া: বগুড়ায় জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আহত কুখ্যাত সন্ত্রাসী আব্দুল্লাহ আল জোনায়েদ ওরফে বিক্লাশ রনি (৩৫) ঘটনার পাঁচদিন পর ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

সন্ত্রাসী আব্দুল্লাহ আল জোনায়েদ ওরফে বিক্লাশ রনি শহরের হাকির মোড় এলাকার মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) দিনগত রাত সোয়া ১১টার দিকে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম আলী বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে বিকেল ৩টার দিকে ঢাকায় জাতীয় পুঙ্গ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আহত সন্ত্রাসী আব্দুল্লাহ আল জোনায়েদ।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) দিনগত রাত ২টার দিকে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম আলীর নেতৃত্বে একটি টহল দল আদর্শ কলেজের সামনে গেলে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে কুখ্যাত সন্ত্রাসী বিক্লাশ রনি আহত হয়। অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে দ্রুত তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের দুই কনস্টেবল আহত হন। তাদেরকে বগুড়া পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটার গান, তিন রাউন্ড গুলি ও একটি ধারালো চাপাতি জব্দ করা হয়। বিক্লাশ রনির বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় অস্ত্র, মাদক, নারী নির্যাতন, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ৮টি মামলা রয়েছে।

এদিকে শজিমেকে চিকিৎসাধীন আহত বিক্লাশ রনির অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে নেওয়ার পর চিকিৎসকরা রনির গুলিবিদ্ধ পা কেটে ফেলতে বাধ্য হন।

এদিকে ঘটনার পাঁচদিন পর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে রনির জ্ঞান ফেরে। এ অবস্থায় রনি নিজের একটি পা কাটা দেখতে পেয়ে আবারো জ্ঞান হারিয়ে ফেলে এবং মারা যায় বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৫০৪ ঘণ্টা, জুন ১৯, ২০১৯
এমবিএইচ/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বন্দুকযুদ্ধ বগুড়া
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-19 05:16:57