bangla news

শ্রীমঙ্গলে ধান-খড় শুকিয়ে সড়ক বেহাল!

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য বাপন, ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৭ ৮:২৮:১৩ এএম
শ্রীমঙ্গলে পাকা সড়কের বেহাল অবস্থা। ছবি: বাংলানিউজ 

শ্রীমঙ্গলে পাকা সড়কের বেহাল অবস্থা। ছবি: বাংলানিউজ 

মৌলভীবাজার: ধানের খড় প্রভৃতি শুকিয়ে পাকা সড়কের দীর্ঘস্থায়িত্ব নষ্ট করে ফেলা হচ্ছে। এছাড়া গৃহপালিত পশু বেঁধে রাখার ফলে তাদের নির্গত মলমূত্র সড়কের ওপর পড়ে তা ক্ষতি সাধন করছে।

শুধু তা-ই নয়, অতিরিক্ত ওজনসম্পন্ন বালু, ইট প্রভৃতির বোঝাই করা যানবাহন সেই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত চলাচলকালে সেই সড়কগুলো মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে। সড়কগুলো যতোদিন যাওয়ার কথা ততোদিন স্থায়িত্ব হচ্ছে না।

স্থানীয় কিছু মানুষের অসচেতনতা ফলে নষ্ট হচ্ছে সড়কগুলোর স্থায়িত্ব, এমনটাই দাবি করেছেন শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়।

শ্রীমঙ্গল শহর সংলগ্ন দক্ষিণ ভাড়াউড়া-সন্ধানী আবাসিক এলাকার শেষ মাথা পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশার কারণে প্রচণ্ড দুর্ভোগে পড়ছে শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়রা। সড়কের বেশিরভাগ অংশেই মসৃণতা উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে খানাখন্দের।শ্রীমঙ্গলে পাকা সড়কের বেহাল অবস্থা। ছবি: বাংলানিউজ স্থানীয় বাসিন্দা অনুপ পাল অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সড়কের বেহাল দশায় সাধারণ মানুষের চলাচলে দুর্ভোগের সৃষ্টি হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নীরব ভূমিকা পালন করছেন। সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়কের খানাখন্দে আটকে গিয়ে অনেকেই আহত হয়েছেন।

রোববার (২৬ মে) সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার কালো পিচ উঠে গিয়ে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়কটিতে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা।

রাস্তার অনেক জায়গায় কার্পেটিং উঠে গিয়ে গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহনগুলোকে চলতে হচ্ছে প্রচণ্ড ঝুঁকি নিয়ে। দক্ষিণ ভাড়াউড়া-সন্ধানী আবাসিক এলাকার সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন প্রায় রিকশা, ট্রাক, প্রাইভেটকার, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, ব্যাটারিচালিত রিকশা, বিভিন্ন কোম্পানির মালবাহী যানবাহন চলাচল করে এই সড়কে। কিন্তু রাস্তার এই বেহাল দশার কারণে প্রতিদিনই কোনো না কোনো দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে এসব যানবাহনগুলো।

বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছাড়াও সর্বস্তরের মানুষজনের যাতায়াত এই ঝুঁকিপূর্ণ সড়কটি দিয়ে। এলাকাবাসীসহ কোমলমতি শিক্ষার্থীরা চায় দ্রুত সড়কটি সংস্কার করে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীকে এ দুর্ভোগ থেকে যেন মুক্তি দেওয়া হয়।

শ্রীমঙ্গলের ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায় বাংলানিউজকে বলেন, রাস্তাটি মানুষ ও যানবাহন চলাচলের জন্য। ধান, খড় শুকানো বা মাত্রাতিরিক্ত বালু-মাটি বোঝাই গাড়ির যাতায়াতের জন্য নয়। এ পাকা সড়কে যদি ২/৩ দিন ধরে ধান, খড় শুকানো হয় তাহলে সেটিতে বৃষ্টির পানি পড়লেই পাকা সড়কের কার্পেটিং ওঠে যায়।

রাস্তার রক্ষাবেক্ষণের কাজগুলো করে থাকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) বিভাগ। আমাদের যতোগুলো পাকা সড়ক রয়েছে সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বছরে টাকাও আসে সে তুলনায় কম। তারপরও দক্ষিণ ভাড়াউড়া-সন্ধানী আবাসিক এলাকার সড়কটি দ্রুত পুনসংস্কার করা হবে যোগ করেন ওই চেয়ারম্যান।                        
বাংলাদেশ সময়: ০৮২৭ ঘণ্টা, মে ২৭, ২০১৯
বিবিবি/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মৌলভীবাজার নিরাপদ সড়ক চাই
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-27 08:28:13