ঢাকা, বুধবার, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২৬ জুন ২০১৯
bangla news

হুট করেই দুর্ঘটনা বেড়েছে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে

সাজিদুর রহমান রাসেল, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৩ ৩:২৯:১৮ পিএম
ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে মানুষ। ছবি: বাংলানিউজ

ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে মানুষ। ছবি: বাংলানিউজ

মানিকগঞ্জ: ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ৩৬ কিলোমিটারের ঝুঁকিপূর্ণ বাঁকগুলো প্রসস্ত করায় কিছুদিন সড়ক দুর্ঘটনা কমলেও গত কয়েক মাস ধরে তা আবারও বেড়েছে।

এর কারণ হিসেবে ওভারটেকিং ও পাটুরিয়া ঘাটে সিরিয়াল পাওয়ার জন্য ওভার স্পিডকে দায়ী করছেন চালক ও এ রুটে চলাচলকারী যাত্রীরা। এছাড়া মহাসড়কে কিছু কিছু জায়গায় থ্রি-হুইলার চলাচলের কারণেও দুর্ঘটনা ঘটছে বলে দাবি করেন তারা।

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের নেতা বিমল চন্দ্র রায় বাংলানিউজকে বলেন, অসুস্থ প্রতিযোগিতা, ট্রাফিক আইন না মানার কারণেই এসব দুর্ঘটনাগুলো ঘটছে। মহাসড়কে আঞ্চলিক যানবাহনের অধিকাংশ চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। এসব অদক্ষ চালকের কারণেই সড়কে দুর্ঘটনা ঘটে। এদিকে, মহাসড়কে সাধারণ যাত্রীরা ফুটওভার ব্রিজ ও জেব্রা ক্রসিং দিয়ে পারাপার না হওয়াতেও দুর্ঘটনাগুলো হয়ে থাকে।

মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অতিন্দ্র চক্রবর্তী বিপ্লব বাংলানিউজকে বলেন, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ৩৬ কিলোমিটার সড়কের কয়েকটি ব্ল্যাক স্পটকে প্রসস্ত করলেও সাইডের রাস্তাগুলো নিচু হওয়ার কারণে অনেক সময় দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়া ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী পরিবহনগুলো পাটুরিয়া ঘাটে ফেরিতে ওঠার সিরিয়াল পাওয়ার জন্য ওভার স্পিডে চলাচল এবং মহাসড়কে কিছু কিছু জায়গায় থ্রি-হুইলার যানবাহন চলাচলের কারণেও দুর্ঘটনা ঘটে।

ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে মানুষ। ছবি: বাংলানিউজ

সোহাগ পরিবহনের চালক লিটন দেওয়ান বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের গাড়িগুলো দ্রুতগামী। এ গাড়িগুলো একটি নির্দিষ্ট সময়ের ভেতর গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়। সময় মতো না পৌঁছাতে পারলে যাত্রীদের ধমক খেতে হয়। অন্যদিকে, পরিবহন ম্যানেজমেন্টের ধমকও খেতে হয়। সড়ক দুর্ঘটনা কোনো চালক ইচ্ছে করে না, যে মহাসড়কে বাস, ট্রাক চলার কথা সেখানে থ্রি-হুইলার চলাচল করে। ওরা জানেই না মহাসড়কে কিভাবে চলাচল করতে হয়। এ কারণে অনেক সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হয়।

মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজের অনার্সের অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মিদুল বাংলানিউজকে বলেন, মহাসড়কে নির্ধারিত স্থানে গাড়িগুলো স্টপেজ না করে যত্রতত্র থামার কারণেও অনেক সময় সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়া মহাসড়কের জেব্রা ক্রসিং বা ফ্লাইওভার ব্রিজ দিয়ে পার না হওয়ার কারণেও দুর্ঘটনা ঘটছে। আমরা আরও একটু সচেতন হলে সড়ক দুর্ঘটনা অনেক কমে যাবে।

গোলড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. লুৎফর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, এ মহাসড়কে দুর্ঘটনার প্রবণতা কমে গেছে অনেকাংশে। তবে গত কয়েক মাস ধরে আবরও সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে গেছে। 

গত জানুয়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত ১৮টি সড়ক দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটে। এরমধ্যে ১৬ জন নিহত হন এবং ৩৭ জন আহত হন। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে যাত্রী ও চালকদের আরও সচেতন হতে হবে তবেই দুর্ঘটনা রোধ হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৯ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০১৯
এনটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   সড়ক দুর্ঘটনা মানিকগঞ্জ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-23 15:29:18