ঢাকা, শনিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

জাতীয়

বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে ইলিয়াস আহমেদের ২৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৪ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০১৯
বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে ইলিয়াস আহমেদের ২৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী

মাদারীপুর: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে ও সাবেক সংসদ সদস্য ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর (দাদা ভাই) ২৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী রোববার (১৯ মে)।

এ উপলক্ষ্যে রোববার বিকেলে মরহুমের নিজ বাড়ি মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার দত্তপাড়ায় আছর নামাজের পর মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

মাদারীপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ছিলেন ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী।

এছাড়া তিনি গণফোরামের প্রাক্তন সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক ও সমাজসেবক ছিলেন।  

এক সময়ের জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা বাংলার বাণী’র সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি ছিলেন ইলিয়াস আহমেদ। এছাড়া আরমবাগ ক্রীড়াচক্র ও খুলনা আবাহনী ক্রীড়া চক্রের সভাপতি ছিলেন তিনি। আর রাজনৈতিক দিক দিয়ে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন।  

মাদারীপুরের উন্নয়নের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছিলেন ইলিয়াস আহমেদ। তিনি শিবচরে শিক্ষা বিস্তারের জন্য প্রতিষ্ঠা করেছেন বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

তার জ্যেষ্ঠ সন্তান নূর ই আলম চৌধুরী মাদারীপুর-১ আসন থেকে ষষ্ঠ জাতীয় সংসদের সদস্য ও নবম জাতীয় সংসদে হুইপ হিসেবে দায়িত্বপালন করেন। বর্তমানে একাদশ জাতীয় সংসদের চীফ হুইপের দায়িত্ব পালন করছেন নূর ই আলম চৌধুরী। তার কনিষ্ঠ সন্তান মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন চৌধুরী) ফরিদপুর-৪ আসন থেকে দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

১৯৩৪ সালের ১৫ আগস্ট মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার দত্তপাড়া এলাকার জমিদার পরিবারে জন্ম হয় ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর। তার বাবা নুরুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী ও মা চৌধুরী ফাতেমা বেগম। তার মা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় বোন।

ইলিয়াস আহমেদের শিক্ষা জীবন শুরু হয় দত্তপাড়ার টিএন একাডেমী থেকে। এরপর মুন্সিগঞ্জ হরগঙ্গা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি পাশ করেন।  

১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন ও ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যূত্থানের উত্তাল দিনগুলোতে নিরলসভাবে কাজ করেছিলেন ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন তিনি। পাশাপাশি মুজিব বাহিনীর কোষাধ্যক্ষেরও দায়িত্ব পালন করেছেন ইলিয়াস আহমেদ। এরপর ১৯৭৩ সালে মাদারীপুর আসন থেকে প্রথম জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। এছাড়া ১৯৭৫ পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগ পুনর্গঠনসহ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন ইলিয়াস আহমেদ।

১৯৯১ সালের ১৯ মে পঞ্চম জাতীয় সংসদের সদস্য থাকাকালীন হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন এই মহান নেতা।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর জ্যেষ্ঠ সন্তান নূর ই আলম চৌধুরী লিটন ও কনিষ্ঠ সন্তান মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১০১৪ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০১৯
এসএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa