ঢাকা, বুধবার, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৭ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

২৭ লাখ টাকার পাবলিক টয়লেট তালা দিয়ে রাখল কর্তৃপক্ষ

তৈয়বুর রহমান সোহেল, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪
২৭ লাখ টাকার পাবলিক টয়লেট তালা দিয়ে রাখল কর্তৃপক্ষ

কুমিল্লা: কুমিল্লার দাউদকান্দির জনবহুল স্থানে নির্মিত দুটি পাবলিক টয়লেটে তালাবদ্ধ হয়ে পড়ে আছে। ২৭ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা এসব টয়লেট জনগণের কোনো কাজে আসছে না।

এ নিয়ে ওই উপজেলাসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার মানুষ বাধ্য হয়ে দাউদকান্দি হয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাতায়াত করেন তাদের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।

সূত্র জানায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর ও রায়পুর বাসস্ট্যান্ডে জনসাধারণ ও পথচারীদের স্যানিটেশন সমস্যার সমাধানে উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের অর্থায়নে প্রকল্প দুটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে। জাতীয় স্যানিটেশন প্রকল্প (তৃতীয় পর্যায়) ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে গৌরীপুর বাসস্ট্যান্ডে এবং ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে রায়পুর বাসস্ট্যান্ডে পাবলিক টয়লেট নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর।

দাউদকান্দি উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মো. তারেক রহমান জানান, নির্মাণকাজ যথাসময়ে সমাপ্তির পর উপজেলা পরিষদকে হস্তান্তর করা হয়েছে। এরপর ইজারাও দেওয়া হয়েছিল। এখন কি কারণে বন্ধ বলতে পারব না।

দাউদকান্দির ইলিয়টগঞ্জের বাসিন্দা আবদুর রউফ জানান, গৌরীপুর হয়ে কুমিল্লার পাঁচ উপজেলা এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দুই উপজেলার মানুষ সরাসরি যাতায়াত করেন। এছাড়া মহাসড়ককেন্দ্রিক এ স্ট্যান্ডটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এমন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নির্মিত পাবলিক টয়লেট জনগণের কাজে আসছে না। যদি টয়লেট নির্মাণ না হতো তাহলে ভিন্ন কথা।  

গৌরীপুরের বাসিন্দা নুরুল ইসলাম জানান, স্যানিটেশন নিয়ে মানুষের মধ্যে বিড়ম্বনা আছে। দাউদকান্দির এ দুটি স্থান জনবহুল। এখানে বিড়ম্বনা আরও বেশি। মহাসড়কের বেশির ভাগ বাস গৌরীপুরে যাত্রাবিরতি দেয়। এখানকার পাবলিক টয়লেট তালাবদ্ধ থাকা সমীচীন নয়।

দাউদকান্দি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আরফাতুল আলম জানান, পাবলিক টয়লেট বন্ধ থাকার বিষয়টি জেনেছি। এটি কি কারণে বন্ধ রয়েছে জানতে আজ স্থানীয় প্রকৌশলীর সঙ্গে বসবো। যদি টেকনিক্যাল বা অন্য কোনো কারণে এগুলো বন্ধ তাকে তা সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪
এসএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।