ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

সব শিক্ষার্থীকে স্কাউট প্রশিক্ষণ দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

মহিউদ্দিন মাহমুদ, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২৩
সব শিক্ষার্থীকে স্কাউট প্রশিক্ষণ দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি শিক্ষার্থীকে স্কাউট প্রশিক্ষণ দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে গাজীপুরের মৌচাকে জাতীয় স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ৩২তম এশিয়া-প্যাসিফিক ও একাদশ জাতীয় স্কাউট জাম্বুরির সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের স্কাউটের সঙ্গে যারা জড়িত, আমাদের শিক্ষা মন্ত্রণালয়গুলোকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রতিটি শিক্ষার্থী যেন এই স্কাউট প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত হয় সেই ব্যবস্থাটা নিতে হবে। তাহলে আমি বিশ্বাস করি আমাদের দেশকে সোনার বাংলা বা স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার উপযুক্ত নাগরিক তৈরি হবে।

প্রধানমন্ত্রী জানান, দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দুটি করে স্কাউট দল বা রোভার স্কাউট করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ছেলেদের পাশাপাশি গার্লস স্কাউট বা মাদ্রাসায়ও যেন স্কাউট গঠন করা হয় সে বিষয়ে সবাইকে কাজ করতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যাব। আর সেই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কিন্তু কাজ করে যাচ্ছি। আমি চাই শুধু বাছা বাছা কয়েক জন না, আমাদের প্রত্যেক শিক্ষার্থী; প্রাইমারি স্কুল থেকে শুরু করে যে পর্যন্ত স্কাউট করা যায়। এখন যদিও আমাদের ২২ লাখ সদস্য আছে কিন্তু ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ লাখ স্কাউট করা হবে। আমার লক্ষ্যটা হবে প্রতিটি শিক্ষার্থী যেন স্কাউট প্রশিক্ষণ পায়।

স্কাউট আন্দোলনের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্কাউটিং নতুন প্রজন্মকে নৈতিক এবং জীবনধর্মী প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। আর তরুণদের মধ্যে আধুনিক প্রগতিশীল, সৃজনশীল গুণাবলী বিকশিত হয়। ফলে স্কাউট সদস্যরা সেবার মন্ত্রে দীক্ষিত হচ্ছে, সচেতন এবং দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে নিজেদেরকে গড়ে তুলছে।

তিনি বলেন, স্কাউট সদস্যরা পরোপকারী হিসেবে সমাজ সেবার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রেখে যাচ্ছে, প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। সেটা আমরা দেখতে পাই প্রাকৃতিক দুর্যোগ হোক বা কোভিড কালীন সময়। বিভিন্ন সময়ে স্কাউটদের সেই আন্তরিকতা আমরা দেখতে পেয়েছি। কাজে আমি চাই এই স্কাউট আন্দোলন আরও ব্যাপকভাবে আমাদের দেশে গড়ে উঠুক।

দেশে স্কাউট আন্দোলনকে ছড়িয়ে দিতে সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে স্কাউট আন্দোলনকে শক্তিশালী করতে আমরা নানা উদ্যোগ নিয়েছি। যেমন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতায় ১৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ স্কাউট শতাব্দি ভবন নির্মাণ প্রকল্প, ৪৮ কোটি ২৩ লাখ টাকা ব্যয়ে মৌলভীবাজার জেলায় স্কাউট ভবন নির্মাণ প্রকল্প, ৪৮ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে আঞ্চলিক স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্র লালমাই উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। তাছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে ৩৫৫ কোটি চল্লিশ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রাথমিকে কাব স্কাউটিং সম্প্রসারণ চতুর্থ পর্যায়ের প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। জাতীয় স্কাউট প্রশিক্ষণ কেন্দ্র মৌচাক গাজীপুরের অনুকূলে ৯৫ একর ভূমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

দেশের প্রত্যেক জেলা-উপজেলায় স্কাউট ভবন ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ করে দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি।

সবাইকে মাদক-সন্ত্রাস থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, প্রত্যেকের মনকে উদার রাখতে হবে। সব ধরনের দুর্নীতি, কুসংস্কার, ধর্মান্ধতা, সন্ত্রাস মুক্ত থাকতে হবে।


মানবতার সেবায় নিজেদের নিয়োজিত করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানবতার সেবা সবচেয়ে বড় সেবা। মানুষের জন্য কাজ করতে পারলেই সবচেয়ে বেশি আত্মতৃপ্তি পাওয়া যায়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২৩
এমইউএম/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa