ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২৩ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে দেড় মাসে ১৯০ অভিযোগ 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩২৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৪, ২০২৩
জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে দেড় মাসে ১৯০ অভিযোগ 

ঢাকা: নবগঠিত ষষ্ঠ কমিশন ১ মাস ১৪ দিনের কার্মদিবসে কমিশন ১৯০টি অভিযোগ পেয়েছে।  

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) রাজধানীর তারকা হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ের কনফারেন্স রুম পদ্মায় ‘মানবাধিকার সুরক্ষায় গণমানুষের প্রত্যাশা: গণমাধ্যম ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সমন্বিত প্রয়াস’ শীর্ষক এক আলোচনা অনুষ্ঠানে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন এ তথ্য জানিয়েছে।

নতুন কমিশনের কার্যক্রম উল্লেখ করে জাতীয় মানবধিকার কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন আইনের আলোকে কমিশন স্বপ্রণোদিত হয়ে অভিযোগ গ্রহণ ও তদন্ত করতে পারে। গণমাধ্যমে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা প্রকাশিত হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে কমিশন সেটি স্বপ্রণোদিত হয়ে আমলে নেয় ও পদক্ষেপ গ্রহণ করে।

তিনি বলেন, সম্প্রতি ‘ডায়ালাইসিসের খরচ
জোগানো একমাত্র ছেলেটি কারাগারে, দিশেহারা মা’- শীর্ষক গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের আলোকে কমিশন ভুক্তভোগী ছেলেটিকে আইনি সহায়তা দিয়ে জামিনে মুক্ত করেছে এবং তার মামলায় তাকে আইনি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। ডায়ালাইসিসের মতো চিকিৎসা সহায়তার গুরুত্ব বিচারে এর মূল্যবৃদ্ধি বিষয়ে যথাযথ সরকারি দপ্তরের দৃষ্টি আকর্ষণ করার পর মুল্য বৃদ্ধি স্থগিত করা হয়।  

গাজীপুরে হাতকড়া ও ডাণ্ডাবেড়ি পরা অবস্থায় মায়ের জানাজা পড়ানোর ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে কমিশন।

তিনি আরও বলেন,গণমাধ্যমে প্রকাশিত রাঙ্গুনিয়ার সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে হামলার শিকার সাংবাদিক; নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে সাংবাদিকদের ওপর হামলা, বিএসএমএমইউ-তে ভালো কিডনি অপসারণে রোগীর মৃত্যুসহ এ ধরনের অনেক ঘটনা কমিশন স্বপ্রণোদিত হয়ে আমলে নিয়েছে এবং সরকারি কর্তৃপক্ষের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করেছে।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক কাজী আরফান আশিক কমিশনের কার্যক্রম সম্পর্কে বলেন, জনগণের মানবাধিকারের ভিত্তিতে গঠন হয়েছে বাংলাদেশ রাষ্ট্র। বাংলাদেশে বড় সমস্যা জনগণের ভেতরে সচেতনার অভাব। এজন্য কমিশন বিভিন্ন জায়গায় নিয়মিত গণশুনানি করে।

কিডনি ফি বাড়ানোর প্রতিবাদ করায় একজন মায়ের সন্তানকে আটক করার ঘটনা কমিশন দেখতে পেলে আইনজীবী নিয়োগ করে। এর মাধ্যমে আদালতের প্রথম কর্মদিবসে তার জামিনের ব্যবস্থা করে কমিশন।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য সেলিম রেজার সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. কামাল উদ্দিন আহমদ, বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ফরিদা ইয়াসমীন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক কাজী আরফান আশিক, সাংস্কৃতিক কর্মী পীযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়, সিনিয়র সাংবাদিক মুনজুরুল আহসান বুলবুল, সোহরাব হোসেন, জ ই মামুন, আইনজীবী ড. তানিয়া হকসহ মানবাধিকার কর্মী ও গণমাধ্যম সংশ্লিষ্টরা।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৪, ২০২৩
এনবি/এসআইএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।