ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২৩ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

প্রবাসীদের ওপর নির্যাতন: মানবাধিকার কমিশনের উদ্বেগ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২৩
প্রবাসীদের ওপর নির্যাতন: মানবাধিকার কমিশনের উদ্বেগ

ঢাকা: প্রবাসে বাংলাদেশি অভিবাসীদের নির্যাতন এবং মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) কমিশনের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ উদ্বেগ প্রকাশের কথা জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় নিয়ে অত্যন্ত সতর্ক ও যথাযথভাবে এ সমস্যা মোকাবিলার উদ্দেশ্যে সত্য ঘটনা উন্মোচন করা প্রয়োজন। বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অভিবাসন খাতকে আরও উন্নত এবং নিরাপদ করার উদ্দেশ্যে প্রকাশিত সংবাদের বিষয়ে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগকে চিঠি দিয়েছে মানবাধিকার কমিশন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত রোববার ও সোমবার বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রবাসে কিছু বাংলাদেশি অভিবাসীকে নির্যাতন এবং মুক্তিপণ আদায় সংক্রান্ত প্রতিবেদনের প্রতি জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে।  

প্রতিবেদনে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ বিশেষত ইতালি পাঠানোর কথা বলে লিবিয়ায় পাঠানো এবং সেখানকার এক বা একাধিক চক্রের মাধ্যমে বন্দীদের নির্যাতন, মুক্তিপণ আদায় ও হত্যার বিষয়টি উঠে এসেছে।

প্রকাশিত বিস্তারিত সংবাদ থেকে জানা যায়, চক্রগুলো ভুক্তভোগীদের নির্যাতন করে সেই নির্যাতনের ভিডিও ধারণ করে। পরে নির্যাতনের ভিডিও দেশে পাঠিয়ে আট থেকে দশ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

কমিশন মনে করে, মানবপাচারের শিকার ব্যক্তিরা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘনের শিকার হন। ইউরোপের বিভিন্ন দেশে নেওয়ার কথা বলে লিবিয়ায় নিয়ে যাওয়া এবং মুক্তিপণ আদায়ের সংবাদ দেশের দৈনিক পত্রিকাগুলোতে প্রায়ই প্রকাশিত হয়।

অভিবাসন দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক খাত। মানবপাচারের শিকার হয়ে কিছু অভিবাসী খুন পর্যন্ত হচ্ছেন। যা কোনোভাবেই প্রত্যাশিত বা গ্রহণযোগ্য নয়। প্রকাশিত সংবাদ থেকে এটি অনুমান করা যায়, এ ধরণের কার্যক্রমের সঙ্গে দেশের এক বা একাধিক চক্র জড়িত। তারা অবৈধভাবে আর্থিক দিকে শুধু লাভবানই হচ্ছেন না; একইসঙ্গে তারা কিছু মানুষকে অমানবিক নির্যাতন এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০২৩
ইএস/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।