ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আইন ও আদালত

ব্লগার ওয়াশিকুর হত্যা: যুক্তিতর্ক উপস্থাপন অব্যাহত 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭১৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০
ব্লগার ওয়াশিকুর হত্যা: যুক্তিতর্ক উপস্থাপন অব্যাহত  ওয়াশিকুর রহমান বাবু

ঢাকা: রাজধানীতে ব্লগার ওয়াশিকুর রহমান বাবু হত্যা মামলায় আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন চলছে। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল ইসলামের আদালতে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন আসামিপক্ষের আইনজীবী আব্দুর রশিদ মোল্লা ও নজরুল ইসলাম।

 

তবে তাদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ না হওয়ায় আদালত আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন।

গত ২১ সেপ্টেম্বর এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর সালাউদ্দিন হাওলাদার ও সাবিনা আক্তার দিপা যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। তারা মামলার পাঁচ আসামির সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড দাবি করেন।  

গত ১০ সেপ্টেম্বর এ মামলায় কারাগারে থাকা তিন আসামি ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৪২ ধারায় আত্মপক্ষ সমর্থন করে জিকরুল্লাহ, আরিফুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম নিজেদের নির্দোষ দাবি করে আদালতের কাছে ন্যায়বিচার চান।  

মামলার অপর দুই আসামি হাসিব আব্দুল্লাহ ও আবু তাহের জুনায়েদ পলাতক। ওইদিনই এ মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য গত ২১ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন আদালত।

২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর ডিবি পুলিশ আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের পাঁচ সদস্য জিকরুল্লাহ, আরিফুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, হাসিব আব্দুল্লাহ (পলাতক) ও আবু তাহের জুনায়েদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

২০১৬ সালের ২০ জুলাই আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ এস এম জিয়াউর রহমান। এরপর গত ২৫ আগস্ট এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। রাষ্ট্রপক্ষে মোট ৪০ সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৩০ মার্চ সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের বেগুনবাড়িতে দীপিকার ঢাল এলাকায় বাসা থেকে বের হয়ে অফিসে যাওয়ার পথে খুন হন ব্লগার ওয়াশিকুর রহমান বাবু। এর পরপরই উপস্থিত জনতার সহায়তায় পুলিশ জিকরুল্লাহ ও আরিফুল ইসলাম নামে দুই মাদ্রাসাছাত্রকে আটক করে।

ফেসবুক ও ব্লগসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইসলাম ধর্ম নিয়ে লেখালেখি করায় বাবুকে হত্যা করা হয়েছে বলে জিকরুল্লাহ ও আরিফুল স্বীকার করেছেন। আটকের সময় তাদের কাছ থেকে হত্যায় ব্যবহৃত তিনটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়।

বাবু হত্যার ঘটনায় আটক জিকরুল্লাহ ও আরিফুল ইসলামসহ চারজনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করে ওই রাতে তেজগাঁও থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন তার ভগ্নিপতি মনির হোসেন। পরে আটক দু’জনকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০
‌কেআই/আরবি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa