bangla news

মহারাষ্ট্রে পেঁয়াজের কেজি ৮ রুপি, কৃষকের কান্না!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-১২ ৬:৪৭:৫১ পিএম
পেঁয়াজের দর না পেয়ে কাঁদছেন এক কৃষক, ছবি: সংগৃহীত

পেঁয়াজের দর না পেয়ে কাঁদছেন এক কৃষক, ছবি: সংগৃহীত

সময় এখন পেঁয়াজের। বাংলাদেশ আর ভারতে ঝাঁজ এত বেড়েছে, সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মানুষ। সেজন্য কোনো কোনো জায়গায় হালি হিসেবেও বিক্রি হচ্ছে। অথচ মাথায় হাত দিয়ে বসার মতো দাম একইদেশের মহরাষ্ট্রে। জানা গেছে, মাত্র আট রুপি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে রাজ্যটিতে।

এতে বিরাট ক্ষতিগ্রস্ত সেখানকার কৃষক। ‘কারও পৌষ মাস কারও সর্বনাশ’ প্রবাদটি যেন তাদের কাছে হেরেই গেছে। কেননা, দিল্লির পেঁয়াজ যেখানে ১০০ রুপির আশপাশে, সেখানে তাদের এ অবস্থা! মহারাষ্ট্রের কৃষকদের দাম না পেয়ে ভেঙে পড়াটাও খুব স্বাভাবিক।

এমনটি ঘটেছেও। বহু আশা নিয়ে চাষ করা পেঁয়াজে লোকসান গুনে কাঁদছেন এক কৃষক। সঙ্গে দোষছেন রাজ্যের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিকেও। এমনই বলছেন, একইদেশের অন্যান্য জায়গায় বেশ কয়েকগুণ বেশি দামে বিক্রি হলেও আমাদের এখানে মাত্র আট রুপি কেজি পেঁয়াজ। আগামী দিনে সংসার চালানো অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে আমার কাছে। অথচ সরকার গঠন নিয়ে চলছে ‘নাটকীয়তা’।

এই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে। ভিন্ন ভিন্ন মন্তব্য করছেন নেটিজেন গোষ্ঠী। উদাহরণ হিসেবে শেয়ারও করছেন অনেকে। যেমনটি করেছেন কংগ্রেস নেতা সুনীল আহির।

শনিবার (০৯ নভেম্বর) তিনি টুইটারে ভিডিওটি পোস্ট করে লিখেছেন, মহারাষ্ট্রের আহমেদনগরের ওই কৃষক পেঁয়াজের দাম পেয়েছেন কেজি প্রতি মাত্র আট রুপি! এ দরে পেঁয়াজ বিক্রি করে তিনি যে রুপি পেয়েছেন, তা দিয়ে কীভাবে শ্রমিকদের মজুরি মেটাবেন, আর সংসার চালাবেন, চিন্তিত তিনি। সে জন্যই কাঁদতে দেখা যাচ্ছে তাকে।

কেঁদে কেঁদে কৃষক বলছিলেন, আট রুপি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হলো। শ্রমিকদের মজুরি কোথা থেকে দেব? ঘরের লোকেদের কী খাওয়াব? ছেলেদের কী খাওয়াব?

এসময় সরকার গড়তেই ব্যস্ত রাজনৈতিক দলগুলোর উদ্দেশেও কথা বলেন এ কৃষক। মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য দৌড়চ্ছেন সবাই। তারা জানেন না আমাদের কোন অবস্থার মুখোমুখি হতে হচ্ছে- উল্লেখ করেন তিনি।

সরকার গঠন নিয়ে মহারাষ্ট্রের রাজনীতি উত্তাল। সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও এনসিপি ও কংগ্রেসের সমর্থন নিয়ে সরকার গঠনের আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে শিবসেনা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ১২, ২০১৯
টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বাংলাদেশ ভারত
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-12 18:47:51