ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯
bangla news

মিয়ানমারে সংঘর্ষে ১ সপ্তাহে নিহত ১৯, বাস্তুচ্যুত ২০০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-২১ ৮:৫৬:৩৪ পিএম
বাড়ি-ঘর ছেড়ে শিবিরে আশ্রয় নেওয়া লোকজন, ছবি: সংগৃহীত

বাড়ি-ঘর ছেড়ে শিবিরে আশ্রয় নেওয়া লোকজন, ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: মিয়ানমারে সামরিক বাহিনীর ‘জাতিগত নিধন’ থামছেই না। এবার দেশটির সেনাবাহিনী এবং জাতিগত সংখ্যালঘু বিদ্রোহীদের মধ্যে সংঘর্ষে গত এক সপ্তাহে দুই হাজারেরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। একইসঙ্গে নিহত হয়েছেন অন্তত ১৯ জন।

মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে এ ঘটনা ঘটে বলে বুধবার (২১ আগস্ট) দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা জানান।

সংবাদমাধ্যম বলছে, মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলের পরিস্থিতি দিনদিন খারাপ হয়ে উঠছে। এই সংঘর্ষে শেষ পর্যন্ত দুই হাজারের বেশি মানুষ বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন। আর এই সহিংসতা মোকাবিলায় মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চিকে এক রকম যুদ্ধ করতে হচ্ছে। বলা হচ্ছে, দেশটি গণতন্ত্রে ফিরলেও সেনাবাহিনীর কার্যক্রমে নিয়ন্ত্রণ আনতে পারছে না অং সান সু চি সরকার।

সহায়তা কর্মীরা জানিয়েছেন, এক সপ্তাহ ধরে চলা সংঘর্ষে অনেকেই নিহত হয়েছেন। এছাড়া প্রাণে বাঁচতে অনেকে বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালিয়েছেন। তারা দেশটির উত্তরাঞ্চলের রাজ্য শান স্টেটের লাসিও শহরের বিভিন্ন মাঠে শিবির করে আশ্রয় নিয়েছেন। এছাড়া তারা বিভিন্ন দাতা সংস্থা এবং সরকারের দেওয়া ত্রাণের মাধ্যমে ঠিকে আছেন।

শান স্টেটের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক সোয়ে নাইং বলেছেন, আমরা শিবিরের বাস্তুচ্যুত মানুষ, আহতরা এবং যারা মারা গিয়েছেন, তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য প্রাথমিক ত্রাণ সামগ্রী এবং নগদ অর্থের ব্যবস্থা করেছি। ইতোমধ্যে তা সরবরাহও করছি।

যতক্ষণ তাদের এই শিবিরে থাকতে হয়, ততক্ষণই তাদের সহায়তা দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৫ ঘণ্টা, আগস্ট ২১, ২০১৯
টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   মিয়ানমার
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-21 20:56:34