ঢাকা, রবিবার, ১০ চৈত্র ১৪২৫, ২৪ মার্চ ২০১৯
bangla news

ভারত-পাকিস্তান দ্বন্দ্ব মেটাতে মধ্যস্থতায় আগ্রহী ইউএন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-২০ ১০:০৮:১৪ পিএম
ভারতীয় সৈন্যদের ওপর হামলা চালানো হয়, এতে মারা যায় ৪৪ জন। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় সৈন্যদের ওপর হামলা চালানো হয়, এতে মারা যায় ৪৪ জন। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সৈন্যবহরে হামলার ঘটনায় ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে শুরু হওয়া উত্তেজনা প্রশমনে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করতে আগ্রহী জাতিসংঘ। 

বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) এক ব্রিফিংয়ে জাতিসং মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক একথা জানিয়েছেন। 

তিনি বলেন, ভারতীয় শাসিত কাশ্মীরে সম্প্রতি নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর গত কয়েক দশকের সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা হয়েছে। এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। পাশাপাশি দুই দেশের মধ্যে বিরাজমান উত্তেজনা প্রশমনে অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। 

‘উভয়পক্ষকে সর্বোচ্চ সংযমী হওয়ার পরামর্শ দিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব বিরাজমান উত্তেজনা প্রশমনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে বলেছেন।’

জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র বলেন, দুই দেশ চাইলে উভয়ের মধ্যে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফেরাতে কাজ করবে জাতিসংঘ। 

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার অবন্তিপুরা এলাকায় সৈন্যবহরে হামলা চালায় জঙ্গিরা। এতে ভারতের সেন্ট্রাল রিজার্ভড পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ)  ৪৪ জন সদস্য নিহত হয়। 

ঘটনার পরপরই এ হামলার দায় স্বীকার করেছে জেইএম। এরপর থেকেই দুই দেশের মধ্যে শুরু হয় উত্তেজনা। ভারতের পক্ষ থেকে পাকিস্তানকে ‘দেখে’ নেয়ার কথা বলা হয়। 

পাল্টা পাকিস্তানও ‘বসে থাকবে না’ বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। 

এদিকে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় সিস্তান-বেলুচিস্তান প্রদেশে পাকিস্তান-ইরান সীমান্তের কাছে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের ওপর জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-আল আদ আত্মঘাতী হামলা চালায়। এতে ২৭ জনের প্রণহানি ঘটে। 

এই দুই হামলায় পাকিস্তানের জড়িত থাকার অভিযোগ উঠলেও তা প্রত্যাখ্যান করেছে দেশটি। তবে এসব ঘটনায় আন্তর্জাতিকভাবে সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে ‘সন্ত্রাসের স্বর্গ রাজ্য’ খ্যাত পাকিস্তানকে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯
এসএ/এমএ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14